নিখোঁজ মালয়েশীয় উড়োজাহাজ কান্দাহারে!

ma
সমাজের কথা ডেস্ক॥ নিখোঁজ মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্সের এমএইচ৩৭০ ফ্লাইটের উড়োজাহাজটির খোঁজে যখন পুরো বিশ্ব মরিয়া, তখন বিস্ময়কর তথ্য দিয়েছে রাশিয়ান দৈনিক ‘মসকোভস্কি কমসোমোলেৎস’।
বিশ্বস্ত গোয়েন্দা সূত্রের উদ্ধৃতি সংবাদ মাধ্যমটি জানিয়েছে, ২৩৯ জন যাত্রীবাহী উড়োজাহাজটি পাকিস্তানের সীমান্তবর্তী আফগানিস্তানের কান্দাহার প্রদেশে রয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে দৈনিকটি আরও জানায়, ৮ মার্চেই উড়োজাহাজটি ছিনতাই করা হয়। তবে, পাইলট নয়, অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসীরা উড়োজাহাজ ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত।
দৈনিকটির খবরে আরও বলা হয়, উড়োজাহাজটিকে কান্দাহারের পর্বতাঞ্চলীয় সড়কে অবতরণ করানো হয়েছে। উড়োজাহাজটির পাখা ভেঙে গেলেও সব যাত্রীই অক্ষত রয়েছেন। তবে ঠিক মতো খাদ্য সরবরাহ না থাকায় কারও অবস্থাই ভালো নয়।
উড়োজাহাজ থেকে ২০ জন এশিয়ান ‘বিশেষজ্ঞ’কে জিম্মি করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজন জাপানিও রয়েছেন।
মসকোভস্কি কমসোমোলেৎস জানায়, বিশেষজ্ঞদের পাকিস্তানের একটি গুহায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সম্ভবত সন্ত্রাসীরা এদের জিম্মি করে কোনো বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র বা চীনের সঙ্গে দরকষাকষি করতে চায়।
দৈনিকটির উদ্ধৃতি দিয়ে ভয়েস অব রাশিয়াসহ পাকিস্তানের কয়েকটি সংবাদ মাধ্যম প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
গত ৮ মার্চ মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুর থেকে চীনের রাজধানী বেইজিং যাওয়ার পথে নিখোঁজ হয় মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্সের এমএইচ৩৭০ ফ্লাইটটি।
১৪টি দেশের ২৩৯ জন যাত্রীবাহী উড়োজাহাজটি নিখোঁজ হওয়ার পর এর সন্ধান পাওয়া নিয়ে অনেক দাবি করা হলেও তথ্য-উপাত্তের অভাবে সেগুলো মিথ্যা প্রমাণ হয়।
আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়, বেসামরিক অনুসন্ধানের পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়া ও চীনসহ বিভিন্ন দেশ সামরিক বিমান-জাহাজ দিয়ে ব্যাপক তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছে।
সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের ধারণা, যান্ত্রিক ত্রুটিতে উড়োজাহাজটি বিধ্বস্ত হয়নি। কিন্তু উড়োজাহাজের রাডারের সঙ্গে নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়াসহ ব্রিটিশ স্যাটেলাইটসহ অন্যান্য স্যাটেলাইটে ধরা পড়া তথ্য-উপাত্ত বলছে, উড়োজাহাজটি কুয়ালালামপুর থেকে বেইজিং যাওয়ার পথে নির্ধারিত রুট থেকে বিচ্যুত হয়ে হাজারো কিলোমিটার দূর দিয়ে উড়ছিল।
বেশ কয়েকবার উড়োজাহাজের ব্ল্যাক বক্সের রেডিও সংকেত পাওয়ার দাবি করা হলেও নির্ভরযোগ্য না হওয়ায় বুধবার পর্যন্ত দক্ষিণ ভারত মহাসাগরে তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া, মালয়েশিয়া, চীনসহ ২৫টি দেশ।

শেয়ার