বুশ এখন চিত্রশিল্পী

bush
সমাজের কথা ডেস্ক॥ আফগানিস্তান-ইরাকে হামলা চালিয়ে লাখো বেসামরিক লোক হত্যার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশকে সবচেয়ে যুদ্ধবাজ প্রেসিডেন্ট হিসেবে অভিযুক্ত করা হয় হয়। তার সমালোচকদের অভিমত, বুশের নামটি আলোচনায় আসলেই চোখে ভাসে একজন যুদ্ধংদেহী নেতার প্রতিমূর্তি।
কিন্তু প্রেসিডেন্ট পদ থেকে অবসর নিয়ে সেই যুদ্ধবাজ বুশ এখন চিত্রশিল্পীর ভূমিকায়। নিজেকে ‘ভালো চিত্রশিল্পী নয়’ বলে দাবি করলেও বুশ তার রংতুলির আঁচড়ে কাছ থেকে দেখা বিশ্বের ২৪ জন নেতার ছবি এঁকেছেন।
তার আঁকা সেই ছবিগুলোর প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে শনিবার। যুক্তরাষ্ট্রের ডালাসে বুশের প্রেসিডেন্সিয়াল লাইব্রেরি অ্যান্ড মিউজিয়ামে ‘দ্য আর্ট অব লিডারশিপ: অ্যা প্রেসিডেন্টস পারসোনাল ডিপ্লোম্যাসি’ শীর্ষক এই চিত্রকর্ম প্রদর্শিত হচ্ছে।
বুশের রং তুলিতে যারা ক্যানভাস বন্দি হয়েছেন এদের মধ্যে রয়েছেন- বুশের বাবা জর্জ এইচ ডব্লিউ বুশ (সিনিয়র বুশ), বুশের আদর্শ নেতা স্যার উইন্সটন চার্চিল (সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী), সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টনি ব্লেয়ার, তিব্বতের আধ্যাত্মিক নেতা দালাইলামা, জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা ম্যার্কেল, রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট পারভেজ মোশাররফ, আফগান প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং, অস্ট্রেলিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী জন হাওয়ার্ড, ইসরায়েলের সাবেক প্রধানমন্ত্রী এহুদ ওলমার্ট, ইতালির সাবেক প্রধানমন্ত্রী সিলভিও বার্লুসকোনি, সাবেক ফরাসি প্রেসিডেন্ট নিকোলাস সার্কোজি, কানাডার প্রধানমন্ত্রী স্টিফেন হারপার, আবুধাবির ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহইয়ান, সাবেক চীনা প্রেসিডেন্ট জিয়াং ঝেমিন প্রমুখ।
ছবি আঁকার পাশাপাশি এসব নেতাদের সঙ্গে দারুণ সময় কাটানোর মুহূর্তগুলোও উঠে এসেছে চিত্রশিল্পী বুশের রংতুলিতে।

শেয়ার