জোড়া বাঘকে কুস্তিতে চ্যালেঞ্জ

bagh
সমাজের কথা ডেস্ক॥ এবার মাতাল হয়ে বাঘের আস্তানায় ঢুকে তাকে কুস্তিতে চ্যালেঞ্জ করেছে ভারতের গোয়ালিয়রের যশোনন্দন কৌশিক নামে এক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র। তবে বাঘতো তার সঙ্গে কুস্তি লড়েইনি বরং ভয়ে নাকি লেজ গুটিয়ে পালিয়েছে।

অদ্ভূত এই কাণ্ডটি ঘটেছে গোয়ালিয়রের গান্ধী চিড়িয়াখানায়।
জানা যায়, ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র যশোনন্দন কৌশিক ওই দিন ২০ ফুট দেয়াল টপকে হঠাৎ বাঘেদের জন্য সংরক্ষিত এলাকায় ঢুকে পড়েন। সেখানে ঢুকে তিনি একটি পাথরের ওপর বসে খালি হাতে দুটি বাঘকে কুস্তির জন্য চ্যালেঞ্জ করেন।
সে সময় দুটি সাদা বাঘ খাঁচার বাইরে ঘুরছিল। তা দেখেই চিড়িয়াখানার কর্মী এবং পর্যটকরা চিৎকার শুরু করে দেন। তা শুনে কুস্তির আশা ছেড়ে দিয়ে ভয়ে খাঁচার মধ্যে ঢুকে পড়ে দুটি বাঘই। এর পরই খাঁচা বন্ধ করে দেন চিড়িয়াখানার কর্মীরা। ঘাম দিয়ে জ্বর ছাড়ে সবার।
যদিও তখনও যশোনন্দনের পাগলামি শেষ হয়নি। বাঘগুলোকে কুস্তি লড়তে বাইরে বেড়িয়ে আসতে খাঁচার সামনে যেয়ে নাচ শুরু করে দেন তিনি। এসময় মাঝে মাঝেই বাঘদুটোকে তিনি অকথ্যভাষায় গালাগালি করছিলেন। অবশেষে চিড়িয়াখানার কর্মকর্তা এবং পুলিশের প্রায় এক ঘণ্টার চেষ্টায় যশোনন্দনকে সেখান থেকে বের করা হয়।
পরে জিজ্ঞাসাবাদের পর পুলিশ কৌশিককে ছেড়ে দেয়। তার বাবা অশোক কৌশিক জানান, যশোনন্দন ইন্দোরের আইপিএস অ্যাকাডেমি কলেজে ইলেকট্রনিক কমিউনিকেশনের ছাত্র। তাকে মনোবিদের কাছে নিয়ে যাওয়ার কথা বলেছেন তার বাবা।
যদিও চিড়িয়াখানার কর্মকর্তারা বলছেন, ঘটনার সময় যশোনন্দন মাতাল ছিলেন।

শেয়ার