‘আরে ব্যাটা, জিয়া বেতন পেত দেড়শ টাকা’

suronjit
সমাজের কথা ডেস্ক॥ জিয়াউর রহমানকে দেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি হিসেবে দাবি করায় তারেক রহমানকে মুজিবনগর সরকারের অধীনে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তার বাবার কাজ করার ঘটনাটি স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম সংগঠক সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত।
বৃহস্পতিবার কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আওয়ামী লীগের স্বাধীনতা দিবসের আলোচনা অনুষ্ঠানে তোফায়েলের পাশাপাশি অন্য নেতারাও তারেকের বক্তব্যের তীব্র প্রতিক্রিয়া জানান।
“পাগল-ছাগল নিয়ে আলোচনা করে লাভে নেই,” তারেককে ইঙ্গিত করে এই কথাও বলেন মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও বর্তমানে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।
জিয়া ও খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক বুধবার লন্ডনে বিএনপির এক সভায় বক্তব্যে দাবি করেন, জিয়া ছিলেন বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি।
ওই বক্তব্য নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটগুলোতে তুমুল আলোচনার মধ্যেই খালেদা বৃহস্পতিবার এক অনুষ্ঠানে একই দাবি করেন।
ঢাকায় খালেদার অনুষ্ঠানের ঘণ্টাখানেক আগে আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা হয়, যাতে তীব্রভাষায় তারেকের সমালোচনা করেন ক্ষমতাসীন দলের নেতারা।
বিভিন্ন মামলার আসামি তারেককে দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের সম্মুখীন করার দাবিও জানান আওয়ামী লীগ নেতারা।
আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সুরঞ্জিত বলেন, “আরে ব্যাটা, প্রক্লেমেশন অফ ইন্ডিপেন্ডেন্সের নাম শুনছ? মুক্তিযুদ্ধ একটা সরকারের অধীনে হয়েছে, সে সরকারের প্রধান ছিলেন বঙ্গবন্ধু।
“আর, সে সরকারের অধীনে জিয়া ছিল একজন সেক্টর কমান্ডার। আমরাও দেড়শ টাকা বেতন পেতাম, সেও পেত দেড়শ টাকা।”
মুক্তিযুদ্ধ শুরুর দিকের কথা তুলে ধরে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, “জিয়া ছিলেন ষোলশহরে। যারা পাকিস্তানে চলে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছিলেন, তারাই ষোলশহরে ছিল। সোয়াত জাহাজ থেকে দু’দিন আগে অস্ত্র খালাস করতে পারলে তারা চলে যেত।”

শেয়ার