ইউক্রেনের নৌবাহিনীর সদরদপ্তর রুশপন্থীদের দখলে

flag
সমাজের কথা ডেস্ক॥
রাশিয়ার সঙ্গে যোগ দেওয়ার চুক্তি সই করার একদিন পর ক্রিমিয়ায় ইউক্রেনের নৌবাহিনীর সদর দপ্তর দখলে নিয়েছেন রুশপন্থীরা। দখলে নেওয়ার পরপরেই সেখানে রাশিয়ার পতাকা উড়িয়েছে রুশপন্থীরা।
আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ইউক্রেনের নৌ বাহিনীর প্রধানকে আটকে রাখা হয়েছে।
ক্রিমিয়ার বন্দরনগর সেভাস্তপোলের অদূরে কৃষ্ণ সাগরে রাশিয়ার নৌবহর রয়েছে।
কোনো ধরনের রক্তপাত ছাড়াই গুরুত্বপূর্ণ এ নৌঘাঁটিটি দখলে নিয়েছে রুশপন্থীরা। ঘাঁটির ভেতরে থাকা এক কর্মকর্তা বিবিসিকে জানিয়েছেন, প্রায় ২০০ রুশপন্থী সদর দফতরের গেট ভেঙে ভেতরে ঢুকেছে।
রোববার ইউক্রেন থেকে আলাদা হওয়ার পক্ষে গণভোটে ৯৭ শতাংশে ভোটার ভোট দেন। ক্রিমীয় ও রুশ নেতারা বলেছেন, ভোটের ফলই বলে দেয় রাশিয়ার সঙ্গে ক্রিমিয়ার যোগ দেওয়ার পক্ষে জনগণের সমর্থন রয়েছে।
তবে ক্রিমিয়ায় বসবাসরত ইউক্রেনীয় ও তাতারা গণভোট বর্জন করেছে। তারা গণভোটের রায়কে প্রত্যাখান করে।
পশ্চিমা ও ইউক্রেনীয় সরকার ক্রিমিয়ার গণভোটকে প্রত্যাখান করেছে। ক্রিমিয়াকে একীভূত করার ঘোষণা দেওয়ার পর রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন।
বুধবার রাশিয়ার সাংবিধানিক আদালতে ক্রিমিয়াকে একীভূত করার চুক্তিকে বৈধ বলে রায় দিয়েছে। এ চুক্তিটি রুশ পার্লামেন্টে সহজে অনুমোদন পাবে বলে মস্কো থেকে জানিয়েছেন বিবিসির সাংবিধানিক।

শেয়ার