উপজেলা নির্বাচন॥ যশোরে আওয়ামী লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত হয়নি বিএনপির সাথে দরকষাকাষিতে জামায়াত

Upojela nirbachon
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী বাছাই নিয়ে আওয়ামীলীগে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। জেলা কমিটির সাথে কোন রকমের আলোচনা ছাড়াই শার্শা উপজেলা কমিটির একাংশ ইচ্ছামতো প্রার্থী দেয়ায় সংকট সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে বিএনপির সাথে প্রার্থী নিয়ে জামায়াতের দরকষাকষি চলছে। তাদের কমপক্ষে ৩টি চেয়ারম্যান ও ৪/৫টি ভাইস চেয়ারম্যান চায়, অন্যত্থায় বিএনপির সাথে কোন আপোষ করবে না জামায়াত।
জানা যায়, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যশোরে বিএনপির প্রধান বাঁধা জামায়াত। ২০০১ ও ২০০৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জামায়াতে ইসলামী জেলার ৬টি আসনের মধ্যে যশোর-১ (শার্শা) এবং যশোর-২ (চৌাগাছা-ঝিকরগাছা) দুটিতে প্রার্থী দিয়েছিলো। দলের একটি সূত্রমতে, এ হিসেবে তারা শার্শা, ঝিকরগাছা ও চৌগাছায় উপজেলা চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী দিতে চায়। এ প্রক্রিয়ায় উপজেলা চেয়ারম্যান পদে ঝিকরগাছা উপজেলা জামায়াতের আমীর মাওলানা আরশাদুল আলম, চৌগাছা উপজেলা আমীর হাফেজ আমিন উদ্দিন মনোনয়ন কিনেছেন। এছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান পদে ঝিকরগাছা থেকে জামায়াত সমর্থিত অধ্যাপক জয়নাল আবেদীন, চৌগাছা থেকে জামায়াতের সেক্রেটারি মাও. গোলাম মোরশেদ, অভয়নগর থেকে শরীফ হোসেন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। আর সদর, কেশবপুর ও মনিরামপুরে ভাইস চেয়ারম্যান পদেও তাদের আবদার রয়েছে। তা না হলে বিএনপিকে ছাড় দেবে না। এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু বলেন, ১৯ দলের নয়, এবার ভোট হবে নাগরিক সমাজের ব্যানারে। সেক্ষেত্রে আলোচনা করে প্রার্থী দেয়া হবে।
এদিকে, প্রার্থী বাছাই নিয়ে কিছুটা সংকটে রয়েছে আওয়ামী লীগ। তাদের প্রতি উপজেলায় একাধিক শক্ত প্রার্থী থাকায় কিভাবে সমঝোতায় পোঁছানো যায় তা ভেবে দেখা হচ্ছে। এরই মধ্যে কেন্দ্রের নির্দেশ অনুসরণ না করেই সাবেক এমপি আফিল উদ্দিন সমর্থকরা উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সিরাজুল হক মঞ্জুকে শার্শায় চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘোষণা করেছে। এনিয়ে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল মান্নান মিন্নু ও বেনাপোল পৌর মেয়র সমর্থকরা চরম ুব্ধ হয়েছেন। এবিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আলী রেজা রাজু বলেন, শার্শায় অবৈধভাবে উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী দেয়া হয়েছে। সেখানে পুনরায় প্রার্থী দেয়ার বিষয়ে আলোচনা হবে। একই অবস্থা ঝিকরগাছা উপজেলায়। সেখানে আওয়ামী লীগে উপজেলা নেতা মুসা মাহমুদ, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম ও ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিপি প্রকৌশলী এমএ সালাম প্রার্থী হতে চান। এছাড়া কেশবপুর, অভয়নগর, মনিরামপুর, বাঘারপাড়ায় রয়েছে একাধিক প্রার্থী। যারা কেউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজ। সবমিলিয়ে কে কোন দলের মনোনীত প্রার্থী হচ্ছেন তা জানতে এখনো অপেক্ষা করতে হবে।

SHARE