একাত্তরের মতোই লড়বেন কবিরা

saiod
বাংলানিউজ ॥
একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় উত্তাল দিনগুলোতে দেশের কবিরা তাদের কলমের ক্ষুরধারে দেশ-মাতৃকার যে জয়গান রচনা করেছিলেন, সেই দেশ স্বাধীনতা বিরোধী শক্তির হাতে আজ আবারও বিপর্যস্ত। তাদের সহিংসতা নিরসনেই দেওয়া হয়েছে কবি সমাবেশের ডাক।
‘হাজার কবির স্বপ্নে রচিত একাত্তরের বিজয়ী বাংলাদেশকে চিরদিন বিজয়ীর বেশেই দেখতে চান কবিরা’ এই প্রতিপাদ্যে ২৩ ডিসেম্বর সোমবার বেলা ১১টায় দেশের কবিদের জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জড়ো হওয়ার ডাক দিয়েছেন সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক।
সৈয়দ শামসুল হক বাংলানিউজকে বলেন, একাত্তরে যেমন ভূমিকা ছিল বর্তমান সহিংসতা নিরসনের জন্য ঠিক একই ভূমিকায় মাঠে নামবেন কবিরা।
রোববার সন্ধ্যায় বাংলানিউজ টোয়েন্টিফোর.কমের কাছে তিনি বলেন, আর অপেক্ষা নয় দেশের এই চরম পরিস্থিতিতে এবার কবিদের এগিয়ে আসা দরকার।
সৈয়দ হক বলেন, অনেক দেখলাম অনেক শুনলাম অনেক জানলাম। রাজনৈতিক নেতা, বুদ্ধিজীবী, সুশিল সমাজ সবাই এই সংকট নিরসনে ভূমিকা রাখতে গিয়ে শেষ পযন্ত ব্যর্থ হয়েছে।
তিনি বলেন, দেশে পুরোনো শত্রু আবারও মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। তারা চতুর্দিকে সহিংস কর্মকাণ্ড শুরু করেছে। তাদের তাণ্ডবে প্রাণ হারিয়েছে অসংখ্য নিরহ মানুষ। এভাবে আর চলতে পারে না। চলতে দেয়া যায়না।
তিনি বলেন, আমরা স্বাধীন দেশে কোন সহিংসতা আর সহ্য করবনা। বাংলাদেশকে একাত্তরের বিজয়ীর বেশে সব সময় দেখতে চাই।
এক প্রশ্নের জবাবে সৈয়দ হক বলেন, কবিরা শুধু জাগরণের কবিতা লিখে নয় সাথে বিভিন্ন কর্মসূচিও পালন করবেন।
সংকট নিরসনের জন্য কবিদের পক্ষ থেকে কি কি কর্মসূচি থাকতে পারে? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সমাবেশের পর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। এখন কিছু বলা যাবে না।
তবে যে কর্মসুচি দেয়া হবে দেশের চলমান সংকট নিরসন না হওয়া পর্যন্ত কর্মসূচিগুলো একাধারে চলতে থাকবে বলেও জানান তিনি।
এর আগে সৈয়দ হক বলেন, দেশ-সমাজ যখন অন্ধকারের দিকে ধাবিত হয়, কবিতাই তখন তিমিরবিনাশী ভূমিকা পালন করে। যুগে-যুগে দেশে-দেশে এমনটিই লক্ষ করা গেছে। বাংলাদেশে মনুষ্যত্ব এখন সংকটাপন্ন। মুক্তিযুদ্ধের অসাম্প্রদায়িক মানবিক চেতনা আজ বিপর্যস্ত। গণতান্ত্রিক মূল্যবোধও বিপন্ন। এই অবস্থায় কবি-লেখক-শিল্পীরা নিশ্চুপ-নিষ্ক্রিয় থাকতে পারেন না। তাই দেশের এই দুঃসময়ে সকল সৃজনশীল কবি-লেখক-শিল্পীর প্রতি সব্যসাচী কবির এই ডাক।
একাত্তরের চেতনাকে ধারণ করে সোমবার বেলা ১১টায় প্রেসক্লাবের সামনের ওই সমাবেশে যথাসময়ে উপস্থিত হওয়ার জন্য দেশের সকল কবির প্রতি উদাত্ত আহবান জানিয়েছেন সৈয়দ শামসুল হক।

শেয়ার