খালি মাঠে গোল হতে দেখে কপাল চাপড়াচ্ছেন খালেদা : প্রধানমন্ত্রী

hasina
সমাজের কথা ডেস্ক॥ খালি মাঠে গোল হতে দেখে বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়া কপাল চাপড়াচ্ছেন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
শনিবার বিকেলে রাজধানীর খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে বিজয় দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় আসন্ন দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রসঙ্গে এ মন্তব্য করেন তিনি।
শেখ হাসিনা বলেন, খালি মাঠ, শূন্য মাঠ, গোল তো হবেই। মাঠে খেলোয়াড় নেই, আমি কী করবো? খেলা হচ্ছে মাঠে, কিন্তু গোলকিপার নেই, গোল তো হবেই! এখন খালি মাঠে গোল হতে দেখে তিনি (খালেদা জিয়া) কপাল চাপড়াচ্ছেন।
শেখ হাসিনা বলেন, আমরা ধরেই নিয়েছিলাম যে, বিএনপি নির্বাচনে আসবে। সে হিসেবেই আমরা দলের প্রার্থীদের মনোনয়ন দিয়েছিলাম। আওয়ামী লীগ সুশৃঙ্খল দল। দলের শৃঙ্খলা মেনে মনোনয়ন নিয়েছেন নেতারা। যেহেতু বিরোধী দল নির্বাচনে আসে নি এবং কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছিল না, সেহেতু ১৫৪ আসনে প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমিতো বলেই দিয়েছি, আসুন আলোচনায় বসি। সমঝোতায় পৌঁছাতে পারলে এ নির্বাচনের পর আমরা সংসদ ভেঙে দিয়ে নতুন নির্বাচন করবো। তবে এজন্য আপনাদের মুক্তিযুদ্ধবিরোধী জামায়াতের সঙ্গ ছাড়তে হবে।
বিজয় দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগের এ আলোচনা সভায় তিনি যুদ্ধাপরাধী আব্দুল কাদের মোল্লার মৃত্যুদণ্ড নিয়ে পাকিস্তানের প্রতিক্রিয়ার বিষয়ে নিরব থাকার জন্য বিএনপি চেয়ারপারসনের সমালোচনাও করেন।
নির্দলীয় সরকারের দাবিতে বিরোধী দল নির্বাচন বর্জন করলেও জাতিসংঘ মহাসচিবের দূত অস্কার ফার্নান্দেজ-তারানকোর মধ্যস্থতায় আওয়ামী লীগের সঙ্গে আলোচনায় বসে বিএনপি।
সেই আলোচনা চললেও দশম সংসদ নির্বাচনে বিএনপির অংশ নেয়ার সুযোগ নেই, একথা আবার বলেছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী হাসিনা।
তিনি বলেন, “আলোচনা করে আমরা যদি সফল হই, যদি সমঝোতা হয়, তবে আবার নির্বাচন দেয়ার কথা তো আমি আগেই বলেছি।
রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে আওয়ামী লীগের এই আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী।
পাকিস্তানের ভূমিকা নিয়ে খালেদা জিয়ার নিরবতার নিন্দা জানিয়ে সভায় ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারা মঙ্গলবার বিক্ষোভ-সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

শেয়ার