যশোরে পাকিস্তানকে ধিক্কার জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কুশপুত্তলিকা দাহ: মানববন্ধন

KUspttolika
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যুদ্ধাপরাধী কাদের মোল্লার ফাঁসির রায় কার্যকর করার পর পাকিস্তানের পার্লামেন্টে নিন্দা প্রস্তাব গৃহীত হওয়ার ঘটনায় ফুঁসে উঠেছে সারাদেশের মানুষ। বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে পাকিস্তানের নাক গলানোর প্রতিবাদে যশোরে মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও কুশপত্তলিকা দাহ করেছে গণজাগরণ মঞ্চ। বৃহস্পতিবার বিকেলে শহরের প্রজন্ম চত্ত্বরে চিত্রামোড়) মানববন্ধন শেষে পাকিস্তানের স্বরাষ্টমন্ত্রীর কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়। পরে শহরে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে।
মানবন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, গণজাগরণ মঞ্চ যশোরের আহবায়ক কাজী আব্দুস শহীদ লাল, যুগ্ম আহবায়ক হারুণ অর রশিদ, সদস্য সচিব সুকুমার দাস, ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য ইকবাল কবির জাহিদ, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান বুলু, শিক্ষাবিদ তারাপদ দাস। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন কল্যাণ সম্পাদক একরাম-উদ-দৌলা, সাংবাদিক রুকুনউদ্দৌলাহ, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) যুগ্ম মহাসচিব ফারাজী আহমেদ সাঈদ বুলবুল, মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদের সভাপতি আমিরুল ইসলাম রন্টু উদীচী যশোরের সাধারণ সম্পাদক ডিএম শাহিদুজ্জামান, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি সাজ্জাদ গণি খান রিমন, শেকড়ের সাধারণ সম্পাদক রওশন আরা রাসু, জাসদ নেতা আবুল কায়েস প্রমুখ।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, একটি স্বাধীন দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে পাকিস্তানের পার্লামেন্টে নিন্দা প্রস্তাব পাসের বিষয়টি নগ্ন হস্তক্ষেপের শামিল। স্বাধীনতার ৪২ বছরেও পাকিস্তানের চরিত্র বদলায়নি। তারা যুদ্ধপরাধীদের পক্ষ নিয়ে প্রমাণ করেছে এখনো তারা ঘাতকদের পৃষ্টপোষক। তাদের এই কর্মকাণ্ডের জন্য সমগ্র বাঙালি জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে। পাকিস্তান ক্ষমা না চাওয়া পর্যন্ত তাদের সাথে সকল কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করতে হবে।
মানববন্ধন ও কুশপুত্তলিকা শেষে শহরে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

শেয়ার