সাতক্ষীরায় যৌথবাহিনীর সাথে জামায়াত শিবিরের রাতভর সংঘর্ষে নিহত ৫

shatkhra
আব্দুল জলিল, সাতক্ষীরা॥ সাতক্ষীরায় পুলিশ বিজিবি ও র‌্যাবের সমন্বয়ে গঠিত যৌথবাহিনীর সাথে জামায়াত শিবিরের সংঘর্ষে এক জামায়াতকর্মীসহ ৫জন নিহত হয়েছে। সোমবার ভোরে সদর উপজেলার পদ্ম শাখবা, আগরাদাড়ি সাতানী ও দেবহাটা উপজেলার সখিপুর এলাকায় যৌথবাহিনীর অভিযানের সময় জামায়াত শিবির তাদের চারপাশ থেকে ঘিরে ফেলে আক্রমন চালায়। জবাবে যৌথবাহিনীর সদস্যরাও পাল্টা গুলি ছোড়ে। এতে ৫ জন নিহত হয়। এ সময় যৌথবাহিনীর হাতে জামায়াত শিবিরের ৯ নেতাকর্মী আটক হয়। সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার চৌধুরী মঞ্জুরুল কবীর ৫ জন নিহত হবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান জামায়াত-শিবির ৪ জনের লাশ লুকিয়ে ফেলেছে। এদিকে গতকাল জামায়াতের হরতালে সড়কের উপর গাছ ফেলে পিকেটিং করার সময় পুলিশ ৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়লে তারা ছত্র ভঙ্গ হয়ে যায়। তাদের দু’জন নেতা হত্যার প্রতিবাদে এই হরতালের ডাক দেয়া হয়।
সাতক্ষীরা সদর সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান জানান, সম্প্রতি জামায়াত-শিবির বেশ কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীকে নৃসংশভাবে হত্যা করে। তাদের বাড়িঘর আগুনে পুড়িয়ে দেয় এবং লুটপাট চালায়। এসব ঘটনার সন্দিগ্ধদের ধরতে পুলিশ বিজিবি ও র‌্যাব যৌথভাবে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করছে। সোমবার অভিযানের খবরে জামায়াত-শিবির হামলার প্রস্তুতি নেয়। তারা যৌথবাহিনীর সদস্যদের লক্ষ করে চারপাশ থেকে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। রাস্তায় গাছ ফেলে তাদের অবরোধ করার চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে যৌথবাহিনীর সদস্যরা নিরূপায় হয়ে গুলি ছুড়তে বাধ্য হয়। এ সময় দেবহাটার পারুলিয়া এলাকায় মনোয়ার হোসেনের ছেলে রিয়াজুল ইসলাম (২৭) ও মৃত মাজেদ মোল্লার ছেলে আব্দুর রউফ (৪৫) নিহত হয়। তিনি আরও জানান, সদরের পদ্মশাখরা এলাকায় অভিযান শুরু করলে জামায়াত শিবির একই ঘটনা ঘটায়। তারা যৌথবাহিনীর ওপর হামলা চালালে জবাবে পাল্টা গুলি ছোড়া হয়। এখানে দু’জন নিহত হয়। তাদের নাম পরিচয় জানা যায়নি। এছাড়া সদর উপজেলার সাতানী এলাকায় জাহাঙ্গীর আলম নামের এক জামায়াত কর্মী নিহত হয় বলে পুলিশ নিশ্চিত করেছে। এদিকে পৃথক এসব ঘটনায় অনেক জামায়াত শিবির কর্মীর বাড়িঘর ভাংচুর করা হয়েছে বলে জামায়াতের পক্ষ থেকে দাবী করা হয়েছে। এদিকে পুলিশের অভিযানে কলারোয়া থেকে তিনজন ও সদর ও দেবহাটা থেকে ৬ জনকে আটক করা হয়েছে। সাতক্ষীরা জেলা জামায়াতের প্রচার সম্পাদক আজিজুর রহমান সদরের আগরাদাড়ি সাতানী এলাকায় জাহাঙ্গীর নামে তাদের একজন কর্মী নিহত হয়েছে দাবী করেছেন। অন্যদের বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না বলে দাবি করেন। এদিকে সদর উপজেলার আগরদাড়ি এলাকায় অভিযানের নেতৃত্বে থাকা সাতক্ষীরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জয়দেব চৌধুরী গত রাতের অভিযানে একজন নিহত হবার বিষয় নিশ্চিত করেন। সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মারুফ হাসান জানান, রিয়াজুল ও আব্দুর রউফ নামে গুলিবিদ্ধ দুজন হাসপাতালে চিকিৎসাধিন রয়েছে।
এদিকে সাতক্ষীরায় গতকালের হরতালে জামায়াত শিবির তেমন সুবিধা করতে পারেনি। যৌথবাহিনীর তৎপরতায় ঢিলে-ঢালাভাবে হরতাল পালিত হয়েছে। অধিকাংশ ব্যবসায়ী জামায়াত শিবিরের তান্ডবের ভয়ে তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলেনি। যানবাহন চলাচল ছিল স্বাভাবিক।

শেয়ার