যশোর বিএনপি মুখে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালনের কথা বললেও বাস্তবে মিল নেই

vhangchur
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর বিএনপি মুখে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির কথা বললেও বাস্তবে মিল নেই। বিভিন্নস্থানে মহাসড়ক অবরোধ ও হরতাল চলাকালে তারা সহিংসতার পথ বেছে নিয়েছে। তাদের এই সহিংসতার নগ্ন থাবায় রক্ষা পাচ্ছে না হরতাল অবরোধের আওতামুক্ত সাংবাদিকরা। অথচ তারা মুখে বারবার শান্তিপূর্ণ হরতাল ও অবরোধ করছে বলে দাবি করেছে। মঙ্গলবার দুপুরে প্রসক্লাব যশোরে এক সংবাদ সম্মেলন করে একই দাবি করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু অভিযোগ করেন, তারা শান্তিপূর্ণ অবরোধ ও হরতাল পালন করলেও আইনশৃংখলা বাহিনী রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস চালাচ্ছে। বিশেষ করে বিজিবি অবরোধকারীদের লক্ষ্য করে গুলি করছে। এসময় তিনি সদরের নতুনহাট, রূপদিয়া ও বসুন্ধিয়ায় কয়েকদিন আগের ঘটনার উদাহরণ দেন। কিন্তু রূপদিয়ায় সেদিনের ঘটনা সম্পর্কে বিজিবি সাংবাদিকদের কাছে যে তথ্য দিয়েছে এর সাথে তা মিল নেই। বিজিবির ভাষ্য মতে, বিজিবির দক্ষিণ পশ্চিম রিজিওনের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার শামসুর রহমান খুলনায় প্রোগ্রাম শেষে যশোর কার্যালয়ে ফিরছিলেন। কিন্তু জামায়াত শিবির ও বিএনপির ক্যাডাররা তার গাড়ি বহরে হামলা করে। এ পরিস্থিতিতে আত্মরক্ষায় ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে বিজিবি। একই ঘটনা ঘটেছিল যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের নতুনহাট বাজারে। সেদিন বিজিবির কর্মকর্তা বেনাপোল যাচ্ছিলেন। কিন্তু বিএনপি জামায়াত গাড়িতে ইট পাটকেল ছোঁড়ে। এতে বিজিবির গাড়ির লাইট ভেঙ্গে যায়। তখনই অবরোধকারীদের বিতাড়িত করতে ফাঁকা গুলি করা হয়। সর্বশেষ ১১ ডিসেম্বর হরতাল চালাকালে শহরের সিভিলকোর্ট, দড়াটানা ও চাঁচড়ায় সহিংসতা করে বিএনপি ক্যাডারা। তারা মোড়ে মোড়ে আগুন ধরিয়ে নাশকতা করতে থাকে। এদিন চাঁচড়া মোড়ে প্রথম আলোর যশোর প্রতিনিধি মনিরুল ইসলামের গাড়ি ভাংচুর করা হয়। জেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক হাজী আনিছুর রহমান ও জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি মাস্টার নুরউন নবীর উপস্থিতিতে এঘটনা ঘটে। এছাড়া ২৭ অক্টোবর হরতাল চলাকালে পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য সাংবাদিক লাবুয়াল হক রিপন শহরে আসছিল। পথিমধ্যে শহরতলীর রূপদিয়া বাজারের মুনসেফপুর মোড়ে জামায়াত-শিবিরের একদল ক্যাডার সশস্ত্র অবস্থায় তার উপর হামলা চালায়। এসময় তার ল্যাপটপ কেড়ে নেয় এবং ব্যবহৃত হিরো হোন্ডা মোটর সাইকেল পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে ভষ্মীভূত করে। এসব ঘটনা পুলিশসহ যশোরের সচেতনমহল অবগত রয়েছেন। তারপরও শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে বলে দাবি করছে বিএনপি। মঙ্গলবার দুপুরে জেলার সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে বিএনপি এ সংবাদ সম্মেলনে এদাবি করেন।
সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শামসুল হুদা। উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপি’র সদস্য নার্গিস ইসলাম, জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন খোকন, প্রচার সম্পাদক হাজী আনিছুর রহমান মুকুল, নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মুনির আহম্মেদ সিদ্দিকী বাচ্চু প্রমুখ।

শেয়ার