বালকের নারী মিশন!

সমাজের কথা ডেস্ক॥ তার বয়স মাত্র ১৪ বছর। এ বয়সেই যৌন নিপীড়নের দায়ে অভিযুক্ত হয়ে শ্রীঘরে দিন কাটাচ্ছে সে। তাও আবার একজন দুজন নয়, ১২ জন নারী তার হাতে নিপীড়নের শিকার হন। এদের মধ্যে বেশ কয়েকজন আবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী। কিশোরী থেকে শুরু করে মধ্যবয়সী নারীরাও তার হাত থেকে রেহাই পাননি।
অভিযুক্ত স্কুল ছাত্রকে বৃহস্পতিবার তার বাবাসহ আদালতে হাজির করা হয়। ১৭ থেকে ৪৮ বছর বয়সী সাত নারীর ওপর যৌন নিপীড়ণের অভিযোগে তার শুনানি চলে।
ম্যানচেস্টার পুলিশের গোয়েন্দা শাখার প্রধান কোলিন লারকিন এ সম্পর্কে বলেন,‘ এই বয়সে এ ধরণের অপরাধ করাটা কোনো স্বাভাবিক বিষয় নয়।’ তার হাতে নিগৃহীত নারীরা বিচারের জন্য এগিয়ে আসায় তিনি তাদেরকেও সাধুবাদ দেন।
গত আগস্ট মাসে ৩২ বছর বয়সী এক নারীর ওপর সে প্রথম হামলাটি চালায়। এর আট দিন পর সে ১৮ বছর বয়সী এক মেয়েকে হামলা করে। অধিকাংশ হামলার ঘটনাগুলো হয় ইংল্যান্ডের বিখ্যাত ম্যানচেস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে।একই দিনে কমপক্ষে পাঁচ জন নারীর ওপর শারিরীক বা মৌখিকভাবে নিপীড়ন করার রেকর্ড রয়েছে তার। বলে ডেইলি মেইলে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।
ম্যানচেস্টার শহরের প্রেস্টউইচ এলাকায় গত ৯ অক্টোবর সর্বশেষ হামলার ঘটনাটি ঘটে। সে নিজের বাড়ির কাছেই ৪৮ বছরের এক নারীর স্পর্শকাতর অঙ্গে স্পর্শ করে। এসব অপরাধের ঘটনায় পুলিশ গত মাসে ওই বালক ও তার ১৮ বছরের ভাইকে কোনো অভিযোগ ছাড়াই আটক করে। পরে অবশ্য তার ভাইকে ছেড়ে দেয়া হয়। পুলিশি তদন্তে একে একে তার কুকর্মগুলো প্রকাশিত হতে থাকে।হামলার শিকার নারীরাও মুখ খুলতে থাকেন।
আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি তার বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা করবেন আদালত। এর মধ্যে ম্যানচেস্টারের ম্যাজিস্ট্রেট আদালত তার মানসিক রিপোর্টগুলো পর্যবেক্ষণ করে দেখবেন। তাকে শর্তসাপেক্ষে জামিন দেয়া হতে পারে বলে জানিয়েছেন জেলা জজ খালিদ কুরাইশি।

শেয়ার