সমকামিতা ফৌজদারি অপরাধ!

somokamita
বাংলানিউজ॥ সমলিঙ্গে যৌনসম্পর্ক প্রকৃতির বিরুদ্ধে অপরাধ। তাই সমকামিতাকে ফৌজদারি অপরাধ আখ্যা দিয়ে বুধবার রায় প্রকাশ করলো ভারতের সুপ্রিম কোর্ট।
সুপ্রিম কোর্টের দুই বিচারক বিচারপতি জিএস সিংভি এবং বিচারপতি এস মুখোপাধ্যায় তাদের রায়ে জানান, ‘সমকামিতা ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা অন্যুায়ী ফৌজদারি অপরাধ। এই আইনের ক্ষেত্রে সাংবিধানিক কোনো প্রতিবন্ধকতা নেই। আইনসভা যদি মনে করে তবে তারা আইনের সংশোধন করতে পারে। তবে তা আদালতের এখতিয়ারভুক্ত নয়।’
ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক আমল থেকেই এ ধারার আইনের আওতায়, প্রকৃতির বিরুদ্ধে যেকোনো ধরনের যৌন সঙ্গমকে নিষিদ্ধ করা হয়।
তবে এর আগে দিল্লি হাইকোর্টের একটি রায়ে সমকামিতাকে বৈধতা দেওয়া হয়েছিলো।
২০০৯ সালের ২ জুলাই দিল্লির উচ্চ আদালতের বিচারপতি এ পি শাহ ও বিচারপতি এস মুরালিধরের বেঞ্চ এই রায় দেন।
ওই রায়ে সমকামিতার অবৈধতাকে বৈষম্যমূলক ও মৌলিক অধিকারের পরিপন্থী বলা হয়েছিল।
পরবর্তীতে এ রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলো ধর্মীয় সংগঠনগুলো। তারা সমকামকে অস্বাভাবিক ও প্রকৃতিবিরুদ্ধ বলে দাবি করে।
এদিকে সুপ্রিম কোর্টের দেখানো পথেই হাঁটার কথা জানিয়েছে ভারত সরকার।
রায়ের পর ভারতের আইনমন্ত্রী কপিল সিবাল বলেন, ‘সুপ্রিম কোর্টই চূড়ান্ত। সংসদ যথাসময়ে এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেবে।’
এদিকে এ রায় নিয়ে রিভিউ করা হবে বলে জানিয়েছে, সমকামী অধিকারের পক্ষে আন্দোলন করা এনজিও নাজ ফাউন্ডেশন।
১৮৯০ থেকে বিদ্যমান ধারা অনুযায়ী সমকামের ফলে আর্থিক জরিমানাসহ ১০ বছর থেকে যাবজ্জীবন কারাদ- পর্যন্ত হতে পারে।

শেয়ার