কাদের মোল্লার ফাঁসি নিয়ে নাটকীয়তা

jail
সমাজের কথা ডেস্ক॥ শেষ মুহূর্তের নাটকীয়তায় ঝুলে গেলো কসাই কাদের মোল্লার ফাঁসি। কারা কর্তৃপক্ষ সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করার পর আব্দুল কাদের মোল্লার আইনজীবীদের আবেদনে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর স্থগিত রাখার আদেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের চেম্বার বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন।
মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক বলেন, মৃত্যুদণ্ড কার্যকর বুধবার সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত স্থগিত রাখার আদেশ পেয়েছেন তারা।
সন্ধ্যায় কারা কর্তৃপক্ষ মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের প্রস্তুতি নেয়ার পর কাদের মোল্লার আইনজীবীরা তা স্থগিতের আবেদন নিয়ে কাকরাইলে চেম্বার বিচারপতি বিচারপতির বাড়িতে যান।
এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে সুপ্রিম কোর্টের নিবন্ধক একেএম শামসুল ইসলাম বলেন, “এই রকম (স্থগিত) একটি আদেশ এসেছে। আমরা কারাগারে যোগাযোগ করছি।”
এর মধ্যে রাত পৌনে ১১টার দিকে কাদের মোল্লার আইনজীবী ফরিদ উদ্দিন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে পৌঁছে সাংবাদিকদের বলেন, “চেম্বার জজ স্থগিতাদেশ দিয়েছেন, আমরা তা কারা কর্তৃপক্ষকে জানাতে এসেছি।”
এর কিছুক্ষণের মধ্যে কাদের মোল্লার প্রধান আইনজীবী আব্দুর রাজ্জাককে কারাফটকে দেখা যায়। তিনি কারা কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলতে গেছেন। তিনি সাংবাদিকদের কিছু বলেননি। এর আগ পর্যন্ত মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের সব প্রস্ততি নিয়ে বসেছিল কারা কর্তৃপক্ষ। কাদের মোল্লার আইনজীবী ঢোকার কয়েক মিনিট আগেও সিভিল সার্জনকে কারাগারে ঢুকতে দেখা যায়।
তার আগে সন্ধ্যায় কারাগারে কাদের মোল্লার সঙ্গে শেষ দেখা করে আসেন তার স্ত্রীসহ স্বজনরা।
এর আগে সিদ্ধান্ত ছিল মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আবদুল কাদের মোল্লাকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হবে মঙ্গলবার দিবাগত মধ্যরাতে। রাত ১২টা ১ মিনিটে এই ফাঁসি কার্যকর করা হবে।
স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু মঙ্গলবার রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছিলেন। আইন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলামের বাসভবনে তিনি সাংবাদিকদের একথা জানান।
কারা মহাপরিদর্শক মাইন উদ্দিন খন্দকার এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন। এ সময় অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম সাংবাদিকদের আরও বলেছিলেন, সকল আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন। আর বিলম্ব করার কোনো প্রয়োজন নেই। কাদের মোল্লার পক্ষের আইনজীবীরা রিভিউ পিটিশনের সুযোগের নামে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন। তারা চেম্বার জজের কাছে যাচ্ছেন। কিন্তু আইনে এ সুযোগ একদমই নেই।
যদিও শেষ মুহূর্তে চেম্বার জজের আদেশেই বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত স্থগিত হয়ে গেল ফাঁসি কার্যকর।
প্রাণভিক্ষা চাননি কাদের মোল্লা : কামরুল আরও বলেন, দুই জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে কাদের মোল্লার কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে তিনি প্রাণভিক্ষা চাইবেন কি না। কিন্তু তিনি তা করবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন। এ অবস্থায় তার বিরুদ্ধে দেওয়া ফাঁসির রায় কার্যকর করার ক্ষেত্রে কোনো বাধা আর নেই।
এর আগে কারা সূত্র জানায়, সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করে ফেলেছেন তারা। ফাঁসির মঞ্চ ও তেল মেখে ফাঁসির রজ্জু তৈরি রাখা হয়েছে। প্রস্তুত রয়েছেন জল্লাদরাও। প্রয়োজনীয় মহড়াও এরই মধ্যে সেরে নিয়েছে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার কর্তৃপক্ষ। কাদের মোল্লার সমান ওজনের ইট বেঁধে ঝোলানো হয়েছে ফাঁসির রশিতে।

শেয়ার