১৭ জেলার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল

govtlogo
বাংলানিউজ ॥
প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগের প্রমাণ পাওয়ায় ১৭ জেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে।

রোববার প্রাথমিক ও গণশিা মন্ত্রণালয় এ সিদ্ধান্তের কথা জানায়।

মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এস এম আশরাফুল ইসলাম জানান, ওইসব জেলায় নতুন করে পরীা নেওয়া হবে।

গত ৮ নভেম্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণিতে সরকারি শিক নিয়োগে ১ হাজার ৩৬২টি কেন্দ্রে লিখিত পরীা হয়। এতে ৯ লাখ ৬৮ হাজার ১২৭ জন অংশ নেন।

পরীার আগেই বিভিন্ন স্থানে প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ পাওয়া যায়। এরপর ১২ নভেম্বর মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এস এম আশরাফুল ইসলামকে আহ্বায়ক করে ৪ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়।

লিখিত পরীার সাত সেট প্রশ্নের মধ্যে ‘হোয়াংহো’ ও ‘মিসিসিপি’ সেট ফাঁস হয়েছে বলে তদন্তে প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি।

ঢাকা, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, শেরপুর, কক্সবাজার, লালমনিরহাট ও নারায়ণগঞ্জে ‘হোয়াংহো’ সেটে পরীা হয়েছিল। এসব জেলার পরীা বাতিল হরা হয়েছে।

সাতীরা, পাবনা, ঝিনাইদহ, রাজবাড়ী, মেহেরপুর, খুলনা, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জের পরীাও বাতিল করা হয়েছে। এসব জেলায় ‘মিসিসিপি’ সেটে পরীা হয়েছিল।

তদন্তের ভিত্তিতে ১৭ জেলার পরীা বাতিল করা হলো বলে জানান আশরাফুল ইসলাম।

তবে এসব জেলায় আগামী ১৫ দিনের মধ্যে পরীা গ্রহণের সুপারিশ করবে তদন্ত কমিটি।

এছাড়া ফোন, মোবাইল ও ই-মেইলের মাধ্যমে প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ থাকায় ওই চক্রকে বের করতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তা নেওয়া হবে বলে জানান অতিরিক্ত সচিব।

তৃতীয় প্রাথমিক শিা উন্নয়ন কর্মসূচির(পিইডিপি-৩) আওতায় রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি, বান্দরবান বাদে দেশের অন্য জেলায় শিক নিয়োগের জন্য গত ২ জুলাই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে প্রাথমিক শিা অধিদপ্তর।

শেয়ার