রূপদিয়ায় বিজিবির গাড়ি বহরে জামায়াত ক্যাডারদের হামলা পরিস্থতি নিয়ন্ত্রনে ফাঁকা গুলি বর্ষণ॥ আহত ৪

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ রূপদিয়ায় বিজিবির সাথে অবরোধকারীদের সংঘর্ষে আহত হয়েছে ৪ জন। তারা সবাই শিবির কর্মী। গতকাল বিকালে বিজিবি’র গাড়ি বহরে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করায় এই সংঘর্ষ বাধে। এ সময় জামায়াত ক্যাডারদের আক্রমন ঠেকাতে ফাঁকা গুলি বর্ষণ এবং লাঠিচার্জ করতে বাধ্য হয় বিজিবি । এই ঘটনার জের ধরে জামায়াত-শিবিরের ক্যাডাররা আওয়ামী লীগের কর্মী ডাক্তার আলমগীর হোসেনের উপর হামলা চালায়।
শনিবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে যশোর-খুলনা মহাসড়কের রূপদিয়া বাজারে রাস্তার ওপর কাঠের গুড়ি ও চৌকি ফেলে অবরোধ কর্মসূচি পালন করে জামায়াত-শিবির । এ সময় খুলনা থেকে বিজিবি’র ৫টি গাড়ি রূপদিয়া বাজারে এলে তাদের পথরোধ করা হয়। এক পর্যায়ে অবরোধকারীরা বিজিবি’র সদস্যদের লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। নিয়ন্ত্রন করতে বিজিবি তাদের উপর লাঠিচার্জ করে। এতে অবরোধকারীরা আরো ক্ষীপ্ত হয়ে বিজিবি’র উপর হামলা চালায়। বিজিবি এ সময় ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে। এতে শিবিরের চার কর্মী আহত হয়। আহতরা হলো, মুজাহিদ, শাহাবুল, রফিকুল ও আওয়াল।
বিজিবি’র সদস্যরা চলে গেলে অবরোধকারীরা বিকেল সাড়ে চারটার দিকে আবারো লাঠি সোটা ও দেশিয় অস্ত্র নিয়ে যশোর-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে। এ সময় বিক্ষুদ্ধ¦ কর্মীরা ওই বাজারে আওয়ামী লীগের কর্মী আলমগীর হোসেনকে মারপিট করে। এর পর আবারো ১০/১২ গাড়ি বিজিবি ও পুলিশ সেখানে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
যশোর-২৬ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের (বিজিবি) অধিনায়ক কর্নেল মতিউর রহমান জানান, বিজিবি’র রিজিওন্যাল কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার শামসুর রহমান খুলনা থেকে যশোর আসছিলেন। পথিমেধ্য রূপদিয়া বাজারে জামায়াত-শিবিরের কর্মী সমর্থকরা তাদের গাড়ি বহরে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এ ছাড়াও তারা কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় এবং লাঠিসোটা নিয়ে এগিয়ে আসে।
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নিতে বিজিবি সদস্যরা ফাঁকা গুলি ছোড়ে। পরিস্থিতি এখন শান্ত।
কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ জানান বর্তমানে পরিস্থিতি তাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে ।

শেয়ার