ম্যান্ডেলায় শোকাহত বিশ্ব পৃথিবীর সব রাস্তা মিলছে জোহানেসবার্গে

medela
বাংলানিউজ॥
বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনের অবিসংবাদিত নেতা নেলসন ম্যান্ডেলার প্রয়াণে শোকে মাতম পুরো বিশ্ব। বাংলাদেশ, ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, জিম্বাবুয়েসহ বিশ্বের অনেক দেশে ম্যান্ডেলার সম্মানে রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করা হয়েছে। ম্যান্ডেলার আত্মার শান্তি কামনা করেছেন রোমান ক্যাথলিক চার্চের প্রধান পোপ ফ্রান্সিস সহ ধর্মযাজকরা।
ম্যান্ডেলার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানাতে দক্ষিণ আফ্রিকার উদ্দেশে উড়াল দিচ্ছেন বিশ্ব নেতারা। নেতাদের সঙ্গে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের লাখো ম্যান্ডেলা ভক্ত আগামী মঙ্গলবার অনুষ্ঠেয় ম্যান্ডেলার স্মরণানুষ্ঠানে যোগ দিতে ইতোমধ্যেই প্রস্তুতি নিয়েছেন। স্মরণানুষ্ঠানের সঙ্গে সঙ্গে কেউ কেউ ম্যান্ডেলাকে চির শায়িত করার মুহূর্তে উপস্থিত থাকার জন্যও প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। সারাবিশ্বের বিমান ফ্লাইটগুলো এখন যেন জোহানেসবার্গের উদ্দেশ্যে উড়াল দেওয়া ম্যান্ডেলা ভক্তদের স্রোত সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে।
অনেক ম্যান্ডেলাপ্রেমী ইতোমধ্যেই জোহানেসবার্গে পৌঁছে গেলেও জানা গেছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও তার পতœী মিশেল এবং সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ ও তার পতœী লরা পরিবারসহ মঙ্গলবারের আগেই জোহানেসবার্গের উদ্দেশ্যে উড়াল দেবেন।
ম্যান্ডেলা দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালনকালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করা বিল ক্লিনটন ও তার পতœী এবং সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারিও জোহানেসবার্গে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে।
হোয়াইট হাউসের প্রেস প্রচিব জ্য কার্নি জানিয়েছেন, মহান নেতা ম্যান্ডেলার শেষ শ্রদ্ধা অনুষ্ঠানে যোগ দেবে ওবামা পরিবার।
এছাড়া, বেশি কোনো তথ্য দিতে অপারগতা প্রকাশ করে কার্নি জানান, সময় হলে সবকিছু জানানো হবে।
অন্যদিকে হোয়াইট হাউস এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ম্যান্ডেলার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে এবং সান্ত¡না জানিয়ে তার স্ত্রী গ্রাসা ম্যাসেলকে ফোন করেছেন প্রেসিডেন্ট ওবামা।
দক্ষিণ আফ্রিকান প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমা জানিয়েছেন, আগামী মঙ্গলবার জোহানেসবার্গের সোবেতোয় ম্যান্ডেলার আত্মার প্রতি সম্মান জানিয়ে জাতীয় স্মরণানুষ্ঠান সম্পন্ন হবে।
তারপর এই মহান নেতার মরদেহ প্রিটোরিয়ার সামরিক হাসপাতালে তিন দিন রাখা হবে। এরপরই ১৫ ডিসেম্বর দেশের পূর্বাঞ্চলীয় ক্যাপে প্রদেশের কুনু গ্রামে নিজের পৈর্তৃক সমাধিস্থলে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাহিত হবেন ম্যান্ডেলা।
বুশ’র মুখপাত্র ফ্রেডি ফর্ড জানিয়েছেন, ওবামা দম্পতির অনুরোধে তাদের সঙ্গেই প্রেসিডেন্সিয়াল বিমানের ফ্লাইটে দক্ষিণ আফ্রিকা যাচ্ছেন বুশ দম্পতি।
দক্ষিণ আফ্রিকায় যাওয়ার কথা নিশ্চিত করেছেন বিল ক্লিনটনও। তিনি জানিয়েছেন তার সঙ্গে হিলারি ও মেয়ে চেলসিও যাচ্ছেন মানবতার মহানায়ককে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে।
জানা গেছে, সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জিমি কার্টার, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী টনি ব্লেয়ার, গর্ডন ব্রাউন, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভসহ বিশ্ব সম্প্রদায়ের অনেক শীর্ষস্থানীয় নেতা প্রিয় নেতাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে দক্ষিণ আফ্রিকা যাচ্ছেন। সবাই একসঙ্গে না পৌঁছালেও পর্যায়ক্রমে সবাইকেই স্বাগত জানাতে প্রস্তুতি নিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকান সরকার।
উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন ধরে ফুসফুসের সংক্রমণে ভোগা ম্যান্ডেলা বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে (৫ ডিসেম্বর) জোহানেসবার্গের বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

শেয়ার