যশোরে ৩ স্বেচ্ছাসেবীকে সম্মাননা প্রদান

ইন্দ্রজিৎ রায় ॥
আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবা দিবস উপলক্ষে যশোরে ৩ স্বেচ্ছাসেবীকে সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জেগে ওঠো ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে সম্মাননা প্রদান করা হয়।
শুক্রবার সকালে প্রেসক্লাব মিলনায়তনে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর আব্দুস সাত্তার তাদের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন। সম্মানানপ্রাপ্তরা হলেন, কেঁচো কম্পোস্ট সার তৈরির প্রশিক্ষণ দিয়ে মানুষকে সাবলম্বী করার জন্য ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার মহেশ্বরচাঁন্দা গ্রামের হেলাল উদ্দিন মণ্ডল, নির্যাতিত অবহেলিত নারীদের সাবলম্বী করার প্রয়াসে ধাত্রীমাতা মণিরামপুর উপজেলার হাজরাকাটি গ্রামের হাচিনা বানু এবং শতাধিক ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পের মাধ্যমে স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের নজির সৃষ্টিকারী যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক মুক্তিযোদ্ধা ইয়াকুব আলী মোল্লা।
জেগে ওঠো ফাউন্ডেশনের সভাপতি শ্রাবন্তী বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক এবিএম গোলাম মাহমুদ ও কবি সাংবাদিক ফখরে আলম। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সুব্রত কুমার দে।
সম্মাননাপ্রাপ্ত ঝিনাইদহের মহেশ্বরচাঁন্দা গ্রামের কৃষক হেলাল উদ্দিন বলেন, একসময় আমাদের গ্রামের লোক না খেয়ে মরতো। গ্রামের কৃষক ওমর আলীর উদ্যোগে কৃষি বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে আমরা প্রযুক্তি নির্ভর চাষাবাদ শুরু করি। এরপর থেকে আমাদের এলাকায় খাদ্যের অভাব কেটে গেছে। তবে চাষাবাদের জন্য সার কিনতে গিয়ে কৃষকদের চিন্তার শেষ নেই। তাই আমি ২০০১ সাল থেকে কেঁচো কম্পোস্ট সার তৈরির প্রশিক্ষণ দিচ্ছি। প্রশিক্ষণ নিয়ে এলাকার কৃষকদের ভাগ্যের বদল হয়েছে।
মণিরামপুরের হাজারাকাটি গ্রামের হাচিনা বানু বলেন, নিজে কিছু পাওয়ার জন্য কাজ করি না। নিজের জীবনে অভাব, নির্যাতন থেকে মানুষের কষ্ট অনুভব করেছি। তাই নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ও তাদের সাবলম্বী করে তোলার জন্য কাজ করছি।
যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. ইয়াকুব আলী মোল্লা বলেন, ৭১ সালের যে আশা আকাক্সক্ষা নিয়ে আমরা মুক্তিযুদ্ধ করেছিলাম সেই যুদ্ধের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে চাই। রোগীরা ডাক্তারের কাছে যায়। কিন্তু আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি ডাক্তার হয়ে রোগীদের কাছে যাব। যারা অভাবের কারণে আমার কাছে আসতে পারেনা আমি তাদের কাছে গিয়ে সেবা দিচ্ছি। এ পর্যন্ত প্রায় ৬০ মানুষকে সেবা দিতে পেরেছি। এ ধারা অব্যাহত রাখতে চাই। এছাড়াও শিক্ষা ও কৃষি ক্ষেত্রে তিনি অবদান রাখছেন বলে জানান।

শেয়ার