কালেক্টরেট মার্কেটের প্রবেশ দ্বারে বোমা হামলা ॥ আহত ৫

bom
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর শহরে কালেক্টরেট মার্কেটে দু’পক্ষের দ্ব›েদ্ধ বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে মালিক ও কর্মচারীসহ ৫ জন আহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে মার্কেটের মেইন গেটে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন, সাদ্দাম এক্সপোর্ট গার্মেন্টস এর মালিক হোসেন আলী, আবির ফ্যাশনের কর্মচারী রিয়াদ হোসেন, হ্যাভেন ড্রেসের মেহেদী হাসান, জিন্স ফ্যাশনের সোহাগ ও রিয়াদ এন্টারপ্রাইজের হাফিজুর রহমান। আহতরা সকলেই যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।
আহত হোসেন আলী জানান, সম্প্রতি তার দোকানে জিন্সের প্যান্ট বিক্রি শুরু করায় তার সামনের দোকান ফেইড গ্যালারির মালিকের সাথে বিরোধ বাধে। এর জের ধরে বুধবার রাত ১০ টার দিকে সালমানের সাথে বাক বিতণ্ডা ও হাতাহাতি হয়। বৃহস্পতিবার সকালে সালমানসহ ৩/৪ জন দুর্বৃত্ত মার্কেটের গেটে একটি বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়। সাথে সাথে মার্কেটে আসা ক্রেতারা আতংকে দিক বিদিক ছুটাছুটি করতে থাকে। আবার অনেক ব্যবসায়ীরা তাদের দোকান পাট বন্ধ করে দেয়। বিস্ফোরিত বোমার স্প্রিন্টারে দোকান মালিকসহ ৫ জন আহত হয়েছে। তাদের সকলকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তবে সালমানের সহযোগীদের কাছে আগ্নেয়াস্ত্র ছিল বলে আহতরা জানিয়েছেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে এবং বিস্ফোরিত বোমার আলামত হিসেবে জালের কাঠি জব্দ করে।
এদিকে ফেইড গ্যালারির মালিক মাহবুব রানা জানিয়েছেন, তাদের দোকানের চারজন কর্মচারীর মধ্যে সালমান সবার কনিষ্ঠ । বুধবার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে দোকান বন্ধ করে তারা বাড়িতে চলে যান। কে বা কারা ওই বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে তা তার জানা নেই।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই মার্কেটের একাধিক ব্যবসায়ী জানান, সাদ্দাম গার্মেন্টস এর মালিকের ৫ ভাই দোকানে থাকায় মার্কেটে আসা ক্রেতা ও প্রতিবেশী ব্যবসায়ীদের সাথে তারা চরম দুর্ব্যবহার করে। মার্কেটে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় দোষীদের শাস্তির দাবিও করেন তারা।
কালেক্টরেট মার্কেটের সভাপতি রেজাউল ইসলাম লালু ও সাধারণ সম্পাদক নেছার আহম্মেদ মুন্না জানান, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে একটি বোমার বিস্ফোরণ ঘটেছে। মার্কেট কমিটি নেতৃবৃন্দ বলেছেন এব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।
কোতোয়ালি থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ জানান, বোমা হামলাকারীদের দ্রুত আটক করা হবে।

শেয়ার