কালিগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধাকে কুপিয়ে হত্যা ॥ আ’লীগ নেতাকে কুপিয়েছে শিবির

4
সাতক্ষীরা ও কালিগঞ্জ প্রতিনিধি॥ সাতক্ষীরার কালিগঞ্জে দুর্বৃত্তদের হাতে গুরুতর জখম মুক্তিযোদ্ধা আলাউদ্দিন খোকন (৭০) মারা গেছেন। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে উপজেলার ভাড়াশিমলা গোয়ালপাড়া গ্রামে ঘুম থেকে তুলে দুর্বৃত্তরা তাকে এলোপাতাড়ীভাবে কুপিয়ে ফেলে রেখে যায়। স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে গতকাল ভোরে তার মৃত্যু ঘটে। এদিকে বুধবার সকালে ভোমরায় আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুস সাত্তার জুয়েল (৩৭) কে জামায়াত-শিবিবের সন্ত্রাসীরা পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে। মুমুর্য অবস্থায় সাতীরা সদর হাসপাতালে তাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। জামায়াত শিবির কর্মী নিহতের বদলা নিতে হত্যাযজ্ঞ চালাচ্ছে বলে পুলিশ ধারণা করছেন সচেতন মহল।
এলাকাবাসী ও নিহতের পরিবার জানায়, মুক্তিযোদ্ধা আলাউদ্দীন খোকন নিজ বাড়ির বারান্দায় ঘুমাচ্ছিলেন। রাত আনুমানিক সাড়ে ১১ টার দিকে মুখোশধারী একদল দূর্বৃত্ত তাকে ঘুম থেকে তুলে মাথায় উপর্যপুরি কুপিয়ে বাড়ির পার্শ্বের ডোবায় ফেলে দেয়। পরিবারের স্বজনরা স্থানীয়দের নিয়ে তাকে উদ্ধার করে কালিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল সাড়ে ৭ টার দিকে তিনি মারা যান। তার এই মৃত্যু খবর পেয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি যুদ্ধকালীন কমান্ডার আলহাজ্ব শেখ ওহেদুজ্জামান, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শেখ নাসির উদ্দীনসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ তাকে দেখতে হাসপাতালে যান। এলাকাবাসীর ধারণা সোমবার ভাড়াশিমলায় পুলিশ ও বিজিবি‘র গুলি বর্ষনে দুই শিবির কর্মী নিহতের বদলা নিতে পরিকল্পিত ভাবে এসব হত্যাযজ্ঞ চালাচ্ছে।
কালিগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আলী আজম খান জানান, মুক্তিযোদ্ধা আলাউদ্দীন খোকন হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় এখনও কাউকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। এদিকে ভোমরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুস সাত্তার জুয়েল গতকাল সকালে মোটরসাইকেলযোগে ভোমরা থেকে সাতীরায় আসছিলেন। শহরের বাকাল এলাকায় পৌঁছালে জামায়াত-শিবির তার উপর হামলা চালায়। তাকে টেনে-হেচড়ে মোটরসাইকেল থেকে নামিয়ে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে শিবির সন্ত্রাসীরা। তার অবস্থা আশংকা জনক বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। গুরুতর জখম জুয়েল ভোমরা বন্দর শ্রমিক নেতা ও সিএন্ডএফ ব্যবসায়ী।

শেয়ার