স্পেশাল অলিম্পিক গেমস ॥ ৭টি সোনা জিতেছে বাংলাদেশ

Oiympic
বাংলানিউজ॥ অস্ট্রেলিয়ার নিউক্যাসলে ‘স্পেশাল অলিম্পিকঃ এশিয়া প্যাসিফিক গেমসে’ বাংলাদেশের বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী খেলোয়াড়রা জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছে। গেমসের ২য় দিনে বাংলাদেশ ৭ টি সোনা, ১ টি রূপা এবং ১টি ব্রোঞ্জসহ মোট ৯টি পদক জিতেছে। বাংলাদেশের সোনাজয়ী খেলোয়াড়দের মধ্যে ব্যাডমিন্টনে সর্বাধিক। লংজাম্পে দুইটি এবং সাঁতারে ১টি সোনা জিতেছে। বাংলাদেশের পে ব্যাডমিন্টনে প্রথম সোনা জয় করেন মুন্নী আক্তার। এছাড়া রাবেয়া, মিজান, রইসও ব্যাডমিন্টনে সোনা জিতেছে। চৈতী এবং হুমায়ূন লংজাম্পে এবং পারুল ৫০ মিটার ব্রেস্টস্ট্রোক সাঁতারে সোনা জিতেছে। মিষ্টি লংজাম্পে রুপা এবং রতন একই খেলায় ব্রোঞ্জ পদক পেয়েছে।
গেমসের প্রথম দিনে ২ ডিসেম্বর ২০১৩ ক্রিকেটের বাছাই পর্বে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা ভারতকে দাড়াতেই দেয়নি। তাদেরকে ১০ উইকেটে পরাজিত করেছে। ফুটবলের বাছাই পর্বে মালয়শিয়াকে ৪-২ গোলে পরাজিত করেছে।
এশিয়া এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ২৯টি দেশের প্রায় ২৫০০ খেলোয়াড়, প্রশিক এবং অফিসিয়ালদের অংশগ্রহনে ‘স্পেশাল অলিম্পিকঃ এশিয়া প্যাসিফিক গেমস ২০১৩’ অস্ট্রেলিয়ার নিউক্যাসলে শুরু হয়েছে। ১ ডিসেম্বর রবিবার নিউক্যাসলের হান্টার স্টেডিয়ামে এক জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে ৭ দিনব্যাপী (১-৭ ডিসেম্বর) গেমসের উদ্বোধন করা হয়। অ্যাথলেটিক্স, বাস্কেটবল, বচো, ব্যাডমিন্টন, ক্রিকেট, ফুটবল, টেবিল টেনিস, তেনপিনবোউলিং এবং সাঁতার এই ৯টি খেলায় প্রতিযোগিরা প্রতিযোগিতা করছে। নিউক্যাসলের সাতটি ভেনুতে খেলাগুলি সম্পন্ন হচ্ছে। ইউনিভার্সিটি অফ নিউক্যাসল, অস্ট্রেলিয়া উক্ত গেমসের কো-স্পন্সর হওয়াতে অধিকাংশ খেলা ইউনিভার্সিটির বিভিন্ন ভেনুতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এবং ইউনিভার্সিটির ছাত্র-ছাত্রীরা সেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করছে। ইউনিভার্সিটি কতৃপ বিদেশী ছাত্রদেরকে নিজ দেশের খেলোয়াড়দের সাহায্য-সহযোগিতা করার জন্য আহবান জানিয়েছে। অনেক বাংলাদেশী ছাত্র সেচ্ছাসেবক হিসেবে নিয়োজিত আছে। বাংলাদেশের পে ১১৭ সদস্যের একটি টিম এই গেমসে অংশগ্রহন করেছে। বাংলাদেশী খেলোয়াড়দের নিয়ে নিউক্যাসলবাসী প্রবাসী বাঙ্গালীদের মধ্যে ব্যাপক উত্সাহ উদ্দীপনা ল্য করা গেছে।

শেয়ার