কালীগঞ্জে পুলিশের ওপর জামায়াত-বিএনপির হামলা, গাড়ি ভাংচুর॥ ওসি ও এএসআই আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালীগঞ্জ॥ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে পুলিশের ওপর হামলার পর তাদের সাথে বিএনপি-জামায়াতের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার বিকালে নীমতলা বাসস্ট্যান্ডের গান্না রোডে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় বিএনপি ও জামায়াতের নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে পুলিশের পিকআপ ভাংচুরসহ ওসি ও এক এএসআই আহত হয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৩ বিএনপি কর্মীকে আটক করেছে। এ সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৯ রাউন্ড সর্টগানের গুলি নিক্ষেপ করে।
জানা গেছে, থানা বিএনপি অবরোধের সমর্থনে শহরের কলাহাটা ও গান্না রোড থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করার চেষ্টা করে। এ সময় পুলিশ মিছিলটি বাধা দেয়। এতে জামায়াত- বিএনপির নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশের সাথে তাদের ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া শুরু হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৯ রাউন্ড সর্টগানের গুলি বর্ষণ করে। সংঘর্ষে কোটচাঁদপুর সার্কেল এএসপির পিকআপ অবরোধকারীরা পাথর মেরে ভাংচুর করে। এ সময় কালীগঞ্জ থানার ওসি মনির উদ্দীন মোল্লা, এএআই হাবিব সর্দার আহত হন। পুলিশ সংঘর্ষের সময় ৩ বিএনপির কর্মীকে আটক করেছে। এরা হচ্ছে চাপালী গ্রামের আব্দুল লতিফের ছেলে শাহবুদ্দীন, একই গ্রামের নায়েব আলী ছেলে আলাউদ্দীন ও আলাইপুর গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে হোসেন আলীকে গ্রেপ্তার করেছে।
কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মনির উদ্দীন মোল্ল্যা জানান, জামায়াত- বিএনপিকে মিছিল বের করতে বাধা দিলে তারা পুলিশের উপর চড়াও হয়ে ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে পুলিশের গাড়ি ভাংচুর করে। এ সময় ওসিসহ এএসআই হাবিব সর্দার আহত হন। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৯ রাউন্ড সর্টগানের গুলি নিক্ষেপ করেছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

শেয়ার