সচিবালয়ে কূটনৈতিক ব্যস্ততা মজীনার

Mojina
বাংলানিউজ ॥
সকল দলের অংশগ্রহণে নির্বাচনী পরিবেশ সৃষ্টি করতে মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডাব্লিউ মজীনা মঙ্গলবার দিনভর ব্যস্ত সময় কাটিয়েছেন সচিবালয়ে।
এদিন সকাল থেকে তিনজন মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক ছাড়াও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে যোগ দেন মজীনা। আরও একজন মন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের কথা থাকলেও তা হয়নি।
চলমান রাজনৈতিক সংঘাত বন্ধ, নির্বাচনে সব দলের অংশগ্রহণের জন্য মন্ত্রীদের তাগিদ দেন মজীনা।
নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার পর টানা অবরোধের মধ্যে রাজনৈতিক অস্থিরতার পরিবেশে মার্কিন এই রাষ্ট্রদূতের একসঙ্গে কয়েকজন মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক রাজনীতিতে নতুন মাত্রা সঞ্চারণ করেছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।
বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মজীনা আসেন তথ্য ও সংষ্কৃতিমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর দপ্তরে। সেখানে চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিসহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে আধাঘণ্টারও বেশি সময় বৈঠক করেন মজীনা।
বৈঠক শেষে যৌথ এক সংবাদ সম্মেলনে মজীনা একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোকে অর্থবহ আলোচনার গুরুত্বারোপ করেন।
বৈঠকের পর একই সংবাদ সম্মেলনে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, আগামী ১০-১৫ দিনের মধ্যে বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়ার সঙ্গে অর্থবহ সংলাপের পথ খুঁজে বের করতে হবে।
নির্বাচনী তফসিল প্রত্যাহারের দাবিতে বিরোধীদলের চলমান আন্দোলনে সহিংসতা নিয়ে মজীনা বলেন, গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় কোনো পক্ষের সহিংসতা গ্রহণযোগ্য নয়। সকল রাজনৈতিক দলের মুক্ত ও শান্তিপূর্ণভাবে কথা বলার অধিকার আছে।
মজীনা প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোকে সংলাপের মাধ্যমে সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের আয়োজন করার ব্যাপারে জোর দেন।

শেয়ার