যশোরে মাদক নিরাময় কেন্দ্রে আ.লীগ নেতার মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর শহরের পালবাড়ি এলাকায় আলফা স্পেশালাইজড হসপিটাল নামে একটি মাদক নিরাময় কেন্দ্রে কাজী ফারুক হোসেন রুমু (৪৫) নামে এক আওয়ামী লীগ নেতার রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। মৃত রুমু বেনাপোল পোর্ট থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বলে জানিয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল হক মঞ্জু। পুলিশ সোমবার সকালে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। একইসাথে, এটি হত্যাকাণ্ডে সন্দেহে এবং জড়িত অভিযোগে পুলিশ ৩ জনকে আটক করেছে। আটককৃতরা হলো, হাসপাতালের তিন কর্মচারী নৈশকালীন কর্মচারী ঘোপ সেন্ট্রাল রোডের আব্দুর রহমানের ছেলে মশিউর রহমান আযম, পিয়ন নাজিরশংকরপুর মধ্যপাড়ার অমিরুল ইসলামের ছেলে ফয়সাল এবং নতুন খয়েরতলা এলাকার গোলাম মোস্তফার ছেলে আযম মোল্লা। আটক মশিউর রহমান আযম ও ফয়সাল জানান, রোববার বিকেল তিনটার দিকে রুমুকে তার স্ত্রী হাসপাতালে ভর্তি করে দিয়ে যান। সে সময় ম্যানেজার জসিম ছিলেন। তিনি সন্ধ্যায় চলে গেলে তার দু’জনে হাসপাতালে ছিলেন। রাত আটটার দিকে রুমু খাওয়া দাওয়া সেরে ঘুমিয়ে পড়েন। সোমবার সকাল সাতটার দিকে ফয়সাল তার ঘরে যায়। তখন সে দেখে রুমু খাটের ওপর জালানার সাথে হেলান দিয়ে বসে আছে। তার চোখ দু’টি ফোলা ছিল। নয়টার দিকে সে রুমু ডাক দেয়। তখন দেখে, গলায় বেল্ট পেচানো এবং জালানার সাথে বাঁধা। পরে খবর পেয়ে হাসপালের ম্যানেজার জসিমসহ অন্যান্যরা এসে পুলিশে খবর দেয়।
কোতোয়ালি থানার অফির্সাস ইনর্চাজ (ওসি) এমদাদুল হক শেখ জানান, মৃত্যুটি রহস্যজনক। সে কারণে তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নেয়া হয়েছে। পোস্টমর্টেম রিপোর্টের পর বোঝা যাবে, এটি হত্যাকাণ্ড কি না।

শেয়ার