কোটচাঁদপুরে পুলিশের সাথে সংঘর্ষে যুবক নিহত॥ ঝিনাইদহে ১৮ দলের হরতাল আজ

kotchandpur
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি॥ বিরোধী দলের ৭২ ঘন্টা অবরোধের প্রথম দিন শনিবার ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে ১৮ দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালে পুলিশের গুলিতে ইসরাইল হোসেন (২৩) নামে এক শিবির কর্মী নিহত হয়েছেন। এসময় ৩ পুলিশ সদস্য সহ আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন। নিহত ইসরাইল কোটচাঁদপুর উপজেলার হরিণদিয়া গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে। এদিকে শিবির কর্মী নিহতের প্রতিবাদে রোববার জেলার ৬ উপজেলায় সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে ১৮ দল।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার সকাল ৯টার দিকে বিএনপি ও জামায়াত-শিবিরের নেতা-কর্মীরা কোটচাঁদপুর শহরের মেইন বাসস্ট্যান্ডে কালীগঞ্জ-জীবননগর সড়ক অবরোধ করে রাখে। এসময় পুলিশ অবরোধকারীদের সরে যেতে বললে তাদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ বেঁধে যায়। তবে দুই সহস্রাধিক অবরোধকারীর প্রতিরোধে পিছু হটে পুলিশ। পরে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কোটচাঁদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেবুপ্রসাদ পালের নেতৃত্বে পুলিশ আবারও বাসস্ট্যান্ড এলাকায় যায়। একপর্যায়ে পুলিশ ও অবরোধকারীদের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়।। অবরোধকারীদের হঠাতে ২৫/৩০ রাউন্ড গুলি ও ২ রাউন্ড টিয়ারসেল নিক্ষেপ করলে তারা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। অবরোধকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ৮/১০টি হাত বোমা ছুড়ে মারে। এসময় অবরোধকারীদের ইটপাটকেলের আঘাতে ৩ পুলিশ সদস্য আহত হন। পুলিশের গুলিতে শিবির কর্মী ইসরাইল হোসেন ও কোটচাঁদপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের ক্রীড়া সম্পাদক ইমদাদুল হক গুলিবিদ্ধ সহ বেশ কয়েকজন আহত হন। আহতদের মধ্যে দু’জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
কোটচাঁদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সিদ্দিক হোসেন জানান, সকাল ১১টার দিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে আনা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইসরাইল হোসেন নামে এক যুবক মারা যান। এদিকে দুপুর ১২ টার দিকে কোটচাঁদপুর হাসপাতাল থেকে নিহত শিবির কর্মীর লাশ গ্রামের বাড়ি হরিণদিয়া নিয়ে যায় দলীয় নেতাকর্মীরা। দুপুর ২টার দিকে পুলিশ সেখান থেকে লাশ নিয়ে আসে। ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে ময়না তদন্ত শেষে নিহতের পরিবরের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে বলে পুলিশ জানিয়েছে। কোটচাঁদপুর থানার ওসি শাজাহান আলী বলেন, পুলিশকে লক্ষ্য করে ১৮ দলীয় জোট সর্মথকরা ককটেল ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করার পরে পুলিশ বাধ্য হয়ে গুলি চালায়। এসময় একজন নিহত হয়েছেন বলে তিনি শুনেছেন।
ঝিনাইদহ জেলা ছাত্রশিবির সভাপতি শাহজালাল বলেন, পুলিশের ছোড়া শর্টগানের গুলিতে তাদের কর্মী ইসরাইল নিহত হয়েছেন। শান্তিপূর্ণ অবরোধ কর্মসূচিতে পুলিশ গুলি চালিয়েছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে ১৮ দলীয় জোট আজ রোববার জেলাব্যাপী সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দিয়েছে বলে তিনি জানান।
শিবির কর্মী নিহতের পর কোটচাঁদপুর শহরে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে। পুলিশের পাশাপাশি এলাকায় র‌্যাব ও অবস্থায় নিয়েছে। পুলিশের ওপর হামলা-বোমাবাজি, সরকারি কাজে বাঁধাদানের ঘটনায় কোটচাঁদপুর থানায় একাধিক মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে কোটচাঁদপুর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান।
এদিকে ঝিনাইদহের সড়ক-মহাসড়কগুলোতে গাছ ও গাছের গুড়ি ফেলে এবং আগুন জ্বালিয়ে অবরোধ করে পিকেটাররা। ফলে কোন ধরণের ইঞ্জিন চালিত যানবাহন চলাচল করছে না। দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।

শেয়ার