বিপাকে ক্ষুদ্র আয়ের মানুষগুলো

বাংলানিউজ ॥ দেশে চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতা ও হরতাল অবরোধে সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছেন ক্ষুদ্র আয়ের মানুষগুলো। যাদের নূন আনতে পান্তা ফুরায় তাদের কাছে রাজনৈতিক দল ও নেতাদের অসহিষ্ণু আচরণ যেন বিলাসিতা ছাড়া আর কিছুই না।
ক্ষুদ্র আয়ের মানুষগুলো বার বার ডাকা হরতাল ও অবরোধের পরিবর্তে সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে দেশে একটি স্থায়ী শান্তি চান।
বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলের ডাকা টানা ৭২ ঘণ্টার হরতালের প্রথম দিনে কাঁচপুর বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে দেখা গেছে, প্রায় দুই শতাধিক টেম্পু দাঁড়িয়ে আছে। এসব টেম্পুর সঙ্গে প্রায় কয়েক শতাধিক শ্রমিকও বসে রয়েছেন। অন্যান্য দিন মালিকের জমা বাদ দিয়ে ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা আয় করে তারা ঘরে ফিরতে পারলেও অবরোধে বিধি বাম।
টাকা আয় তো দূরের কথা, প্রতিটি টেম্পুর জন্য মালিক পক্ষকে দৈনিক যে পাঁচশ’ টাকা জমা দিতে হয় সেই টাকা ওঠাতেও হিমশিম খেতে হচ্ছে এসব টেম্পু চালকদের।
কাঁচপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে এসব টেম্পু কাঁচপুর থেকে তারাব ও নারায়নগঞ্জের গাউছিয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। কিন্তু অবরোধের নামে সহিংসতা ও জ্বালাও-পোড়াও রাজনীতির কারণে কেউ ঝুঁকি নিতে চাইছেন না।
টেম্পুচালক আবু বকর সিদ্দিক বাংলানিউজকে জানান, অন্যদিন কাঁচপুর থেকে তারাব পর্যন্ত ৭ থেকে ৮ টিপ মারতে পারি। হরতাল ও অবরোধে ২ টিপ মারোন যায় না। নিজের ভাতের টাকা দূরের কথা, জমার টাকা ওঠাতে পারি না।
টেম্পু চালক সিদ্দিকসহ সবার মত, হরতাল ও অবরোধ বাদ দিয়ে সমঝোতা দরকার। দেশে একটি সুষ্ঠু ভোট দরকার।
শুধু ক্ষুদ্র আয়ের মানুষ সিদ্দিকই নন, ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র দোকানিরাও পড়েছেন বিপাকে। চিটাগাং রোডের ফ্লাইওভারের নিচে ফল বিক্রি করছেন রঞ্জু দাশ। এই ফল বিক্রেতা প্রতিদিন ৫ থেকে ৬ হাজার টাকার ফল বিক্রি করতে পারলেও অবরোধের দিন শনিবার বেলা আড়াইটা পযর্ন্ত ১ হাজার টাকার ফল বিক্রি করতে পারেননি তিনি।
রঞ্জু দাশ বাংলানিউজকে ক্ষোভের সঙ্গে জানান, অবরোধ ও হরতালে মানুষজন আইতে পারে না। এহন দরকার, দুই নেত্রী এক লগে বইসা একটা সমাধান করা।
চিটাগাং রোডের সিমরাইল সাজেদা হাসপাতাল সংলগ্ন এলাকায় নামমাত্র দোকানের ঝাপ খুলে বসে আছেন চা বিক্রেতা মীর রুহুল আমীন। তিনি জানান, অন্যান্য দিন ৩ থেকে ৪ হাজার টাকার পণ্য বিক্রি হলেও অবরোধে একেবারে বেচাকেনা হয় না।
মীর রুহুল বাংলানিউজকে জানান, ঘরে বইয়া থাকলে রাজনৈতিক দলগুলো প্যাডে ভাত দিবো না। তাইলে তারা আমগো বন্দি কইরা রাখছে ক্যান?

শেয়ার