পোড়ানো হয়েছে বিআরটিসির ৩২ গাড়ি, ভাংচুর ১৫৩

BRTC
সমাজের কথা ডেস্ক॥
গত কয়েকদিনের হরতাল-অবরোধে বিআরটিসির ১৫৩টি গাড়ি ভাংচুর এবং ৩২টি পোড়ানো হয়েছে বলে যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন।
শনিবার যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো জানান, গত কয়েক মাসে বিরোধী দলের হরতাল, অবরোধে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাটির ৪১ কোটি ৬৮ লাখ ২০ হাজার ৭৬৪ টাকা ক্ষতি হয়েছে।
এছাড়া চলতি বছরে রাজপথের বিভিন্ন আন্দোলন ৫ হাজার বেসরকারি মালিকাধীন গাড়ি ভাংচুর ও ১ হাজারের মতো গাড়ি পোড়ানো হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।
আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে মানবতাবিরোধী অপরাধে দলের নেতাদের সাজার পর এর বিরুদ্ধে রাজপথে বছরজুড়ে অব্যাহত সহিংসতা দেখায় জামায়াতে ইসলামী।
এছাড়া নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকারের দাবিতে এবং সম্প্রতি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার বিরুদ্ধে টানা হরতাল-অবরোধ কর্মসূচি পালন করছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোট।
নির্বাচনকালীন সময়ের মধ্যেও সারা দেশে রাজনৈতিক সহিংসতা অব্যাহত আছে। গত এক সপ্তাহে সহিংসতায় বিজিবি সদস্যসহ কমপক্ষে ২১ জন প্রাণ হারিয়েছে।
হরতাল-অবরোধে গাড়ি পোড়ানোর বিষয়ে যোগাযোগমন্ত্রী বলেন, “পরিবহন সেক্টর প্রতিবাদকারীদের প্রধান টর্গেটে পরিণত হয়েছে। ১৯৬৬ সাল থেকে শুরু করে অতীতে অনেক আন্দোলন দেখেছি। সরকারি সম্পদের ওপর এরকম নজিরবিহীন তাণ্ডব আর দেখিনি।”
রেললাইন উপড়ে ফেলা ও ট্রেনে আগুন দেয়ার ঘটনাও ঘটে গত সপ্তাহের অবরোধে।
তিনদিনের অবরোধে রেল খাতে ৬ কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে বলে সম্প্রতি রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক জানিয়েছেন। বৃহস্পতিবার রেল ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো বলেন, চলতি বছর এর আগে বিভিন্ন সময়ে হরতালসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক কর্মসূচিতে নাশকতার কারণে ২৬ কোটি টাকার ক্ষতি হয়।
যোগাযোগমন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের প্রসঙ্গ তুলে ধরেন। ওইসব দেশে আন্দোলনের মাধ্যমে সরকার পরিবর্তন হলেও এত নাশকতা হয়নি।
“আরব স্প্রিংয়ে দেখেছি, আন্দোলনকারীরা এই অস্ত্র ব্যবহার করেনি। থাইল্যান্ডে আন্দোলন হচ্ছে, সেখানে বিশাল বিশাল সমাবেশ হচ্ছে, কিন্তু সহিংসতা নেই। সমাবেশই তো বড় অস্ত্র।”
“ফিলিপাইনে ফার্দিনান্দ মার্কোসের বিরুদ্ধে আন্দোলন দেখেছি। সেখানে মানুষ রাস্তায় নেমে এসেছিল। কোথাও চলন্ত ট্রেনে জীবন্ত মানুষকে পুড়িয়ে মারা হয়নি।”
“নিষ্ঠুর রাজনীতির নৃশংস কৌশল মানুষকে জিম্মি করে ফেলেছে। যেন মানুষের জীবনে চেয়ে তাৎক্ষণিক রাজনৈতিক স্বার্থ বড় হয়ে উঠছ

শেয়ার