যুবলীগ নেতা নাজমুলের অবস্থার উন্নতি হয়নি ॥ ব্যর্থ হত্যা মিশনে অংশ নেয়া জামায়াত বিএনপি’র সন্ত্রাসীরা এলাকায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে !

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোরের যুবলীগ নেতা নাজমুল ইসলামের অবস্থার উন্নতি হয়নি। তার শরীরে কয়েক দফা অস্ত্রোপাচারের পর গত দুদিন ধরে তাকে আইসিইউতে রেখে নিবিড় পর্যবেক্ষনে রাখা হয়েছে। বুধবার অবরোধ চলাকালে জামায়াত-বিএনপি’র সশস্ত্র একদল সন্ত্রাসী তাকে ধরে হাত ও পায়ের রগ কেটে দেয়। প্রথমে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির পর তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে খুলনায় একটি অত্যাধুনিক কিনিকে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসকদের নিবিড় পর্যবেক্ষনে রয়েছেন যুবলীগের এই নেতা। এদিকে ব্যর্থ এই হত্যা মিশনে অংশ নেয়া জামাত বিএনপি’র সন্ত্রাসীরা এলাকায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। পুলিশ তাদের গ্রেফতার না করায় দলীয় কর্মী সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা বাড়ছে।
বিএনপি-জামায়াতসহ ১৮ দলীয় জোটের ডাকে অবরোধ কর্মসূচীর দ্বিতীয় দিনে সদর উপজেলার কুয়াদা বাজারের গার্লস স্কুলের সামনে বেলা ১১টার দিকে জামায়াত-বিএনপি’র ক্যাডাররা তাকে ধরে হাত ও পায়ের রগ কেটে মৃত ভেবে ফেলে রেখে যায়। প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রমতে, এই হত্যা প্রচেষ্টা মিশনে নেতৃত্ব দেয় মোসলেম মেম্বর। সন্ত্রাসীরা প্রথমে বোমা ফাটিয়ে আতংক সৃষ্টি করে এবং পরে যুবলীগ নেতাকে হত্যার চেষ্টা করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাকে উদ্ধার করে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। এখানে প্রথম দফায় অস্ত্রোপাচার করেন চিকিৎসকরা। কিন্তু অবস্থার অবনতি বুঝে তাকে দ্রুত খুলনায় রেফার্ড করা হয়। বর্তমানে তাকে আইসিইউতে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এদিকে ব্যর্থ এই হত্যা মিশনে অংশ নেয়া সন্ত্রাসীদের সনাক্তকরণ করা গেলেও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা গত দুদিনে একজনকেও গ্রেফতার করেনি। তারা এলাকায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে বলে স্থানীয়রা দাবি করেছে। এরফলে জনমনে আতংক দেখা দিয়েছে। ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে দলীয় নেতা কর্মীদের মধ্যেও। বিুব্ধরা সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন।

শেয়ার