অস্কারখ্যাত কারি অ্যাওয়ার্ডে বাঙালিদের প্রশংসায় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

devidcamerun

বাংলানিউজ ॥
ব্রিটেনে বাঙালির মূল ব্যবসা সেক্টর রেস্টুরেন্ট শিল্প বছরে ব্রিটিশ অর্থনীতিতে ৩.৫ বিলিয়ন পাউন্ডের যোগান দিচ্ছে। আর এই যোগান সমৃদ্ধ করছে ব্রিটিশ অর্থনীতি। সোমবার লন্ডনে রন্ধন শিল্পের অস্কারখ্যাত ‘ব্রিটিশ কারী অ্যাওয়ার্ড ২০১৩’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন নিজেই এ কথা বলেন।
বিশিষ্ট বাঙালি রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ী এনাম আলী প্রতিষ্ঠিত এই কারি অ্যাওয়ার্ড বিগত কয়েক বছর ধরে ব্রিটিশ মূলধারায় কারি শিল্পের ‘অস্কার’ হিসেবেই বিবেচিত হয়ে আসছে। সোমবার নবম ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীও এই আয়োজনকে কারি শিল্পের ‘অস্কার’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।
এর আগে বিরোধী দলীয় নেতা থাকাকালেও এই কারি অ্যাওয়ার্ডের একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন ডেভিড কেমেরন। প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রেখেছেন আরও একবার। আর এবার স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে অনুষ্ঠানটির গুরুত্ব ব্রিটেনের কাছে কতটুকু তারই প্রমাণ তুলে ধরেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী।
শুধু উপস্থিতিই নয়, রেস্টুরেন্ট শিল্পের প্রতি নিজের শ্রদ্ধা ও আসক্তির প্রকাশ ঘটিয়ে অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্যও রেখেছেন তিনি এই অনুষ্ঠানে।
লন্ডনের ‘বাটারসি এভল্যুশন’ এ সোমবার রাতে কারি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও সরকারের মন্ত্রী, এমপি, রাজনীতিক, মূলধারার সাংবাদিক ও সংষ্কৃতিকর্মীসহ ব্রিটিশ সোসাইটির নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ডের প্রডিউসার ও ডাইরেক্টার জাস্টিন আলীর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত ইভেন্টেসে কারি অ্যাওয়ার্ডের প্রতিষ্ঠাতা এনাম আলী এমবিই স্বাগত বক্তব্য রাখেন।
অনুষ্ঠানে ব্রিটেনের বিভিন্ন রিজিয়নের বাছাই করা একেকটি রেস্টুরেন্টকে ‘ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ড ২০১৩’ এ ভূষিত করা হয়। প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ৬ মিনিট। তবে অনুষ্ঠানে তিনি উপস্থিত ছিলেন বেশ কিছুণ। প্রধানমন্ত্রী তাঁর বক্তৃতায় কারি শিল্পের ইতিহাস বর্ণণা করে বলেন, আজ থেকে দুই শতাধিক বছর আগে ১৮০৯ সালে ইন্ডিয়ান একটি কফি হাউস প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে যে শিল্পের গোড়াপত্তন হয়েছিলো এই ব্রিটেনে, সেই শিল্প আজ ব্রিটিশ জাতির খাদ্যাভাসই বদলে দিয়েছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশিরা আজ ব্রিটেনে যে রেস্টুরেন্ট ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে তার বার্ষিক টার্নওভার ৩.৫ বিলিয়ন পাউন্ড। ক্যামেরন বলেন, কারির গন্ধ ব্রিটিশ জাতিকে এমন ভাবে মাতোয়ারা করেছে যে, প্রতি সপ্তাহে প্রায় ২.৫ মিলিয়ন ব্রিটিশ নাগরিক কারির স্বাদ নিতে ছুটে যান এই রেস্টুরেন্টগুলোতে।

শেয়ার