অবরোধের নামে রাজধানীতে শিবিরের নৈরাজ্য

বাংলানিউজ ॥
১৮ দলের টানা ৪৮ ঘন্টা অবরোধের নামে রাজধানী জুড়ে নৈরাজ্য সৃষ্টি করেছে জামায়াতের সহযোগী ছাত্রসংগঠন ইসলামী ছাত্রশিবির।
অবরোধের প্রথম দিন মঙ্গলবার সকাল থেকেই রাজধানীতে আতঙ্ক তৈরির চেষ্টায় লিপ্ত ছিলো শিবির। রাজধানীতে বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনগুলোর উপস্থিতি খুব একটা চোখে না পড়লেও বরাবরের মতই তৎপর আছে তারা।
শিবিরের ঢাকা মহানগরের চারটি শাখা রাজধানী অন্তত ২০টি স্পটে হরতাল স্টাইলে পিকেটিং ও রেল লাইনে নাশকতার চেষ্টা চালায়।
সকালের রাজধানীর উত্তরার আজমপুরে টায়ার জ্বালিয়ে রেললাইন অবরোধের পাশাপাশি তিতাস কমিউটার ট্রেনের দু’টি বগিতে ভাঙচুর চালায় তারা। এ সময় পুলিশের সঙ্গে তাদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে দণিখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কায়কোবাদ ও শিবিরের কেন্দ্রীয় নেতা ও ঢাকা মহানগরর উত্তরের সভাপতি রাকিব মাহমুদসহ অন্তত ২৫ জন আহত হয়। এর মধ্যে গুলিবিদ্ধ হন ৭ জন।
সকাল সাড়ে ৮ টায় রাজধানীর যাত্রাবাড়ি কাজলা এলাকায় বিজিবি‘র টহল গাড়িকে ল্য করে ককটেল ও সায়েদাবাদ ব্রিজের কাছে র‌্যাবের গাড়িকে ল্য করে ককটেল ছোঁড়ে মহানগর দণি শিবির কর্মীরা। একই সময় মাতুয়াইল এলাকাতেও কয়েকটি গাড়িতে ভাঙচুর চালায় তারা।
বাসাবো টেম্পুস্ট্যান্ড এলাকায় মিছিল করে সড়ক অবরোধের চেষ্টা করে মহানগর পূর্ব শাখা শিবিরের কর্মীরা।

শেয়ার