ক্যান্সার শনাক্তে মৌমাছি

bee
সমাজের কথা ডেস্ক॥
এতদিন যাবত কেবল মৌমাছির হুলে রোগীর চিকিৎসা করে এসেছেন চিকিৎসকেরা। কিন্তু যুক্তরাজ্যের পতঙ্গ গবেষণাগার ইনসেন্টিনেল বলছে ভিন্ন কথা। হুল ফোটানো ছাড়াও প্রাথমিক পর্যায়ের ক্যান্সার শনাক্ত করে চিকিৎসায় ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে পারে মৌমাছি।

প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট ম্যাশএবল এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, প্রশিক্ষিত মৌমাছি ব্যবহার করে প্রাথমিক পর্যায়ের ক্যান্সার শনাক্ত করা সম্ভব হতে পারে বলে সাম্প্রতিক এক গবেষণার প্রতিবেদনে জানিয়েছে ইনসেন্টিনেল।

ইনসেন্টিনেলের ওই গবেষণার উপর ভিত্তি করে নতুন এক কাচের ডিভাইস বানিয়েছেন পর্তুগিজ ডিজাইনার সুসানা সোয়ার্স। সোয়ার্সের ডিভাইসটি দুটি আবদ্ধ অংশে বিভক্ত। একটি অংশের ছোট একটি ছিদ্র দিয়ে শ্বাস ছাড়বেন রোগী আর দ্বিতীয় অংশটিতে থাকবে প্রশিক্ষিত মৌমাছি।

নিজস্ব ওয়েবসাইটে সোয়ার্স জানিয়েছেন, মৌমাছির ঘ্রাণশক্তি এতটাই বেশি যে রোগের গন্ধ শনাক্ত করতে পারে এরা। ডিভাইসের ছোট ছিদ্রটি দিয়ে রোগী নিঃশ্বাস ছাড়ার পর তাতে রোগের গন্ধ পেলে অপর পাশে উড়ে যেতে চাইবে মৌমাছিগুলো। আর এভাবেই রোগের লক্ষণ চিহ্নিত করতে পারবেন চিকিৎসকরা।

টিউবারকিউলোসিস, ফুসফুস ক্যান্সার, ত্বকের ক্যান্সার আর ডায়াবেটিস শনাক্ত করা সম্ভব হতে পারে এই পদ্ধতি ব্যবহার করে।

শেয়ার