যুক্তরাষ্ট্রে ঘুষি আতঙ্ক!

সমাজের কথা ডেস্ক॥ যে দেশটির জনগণের ওপর রয়েছে অহরহ জঙ্গি হামলার ভয়, সেই মার্কিনিরাই এখন আবার নাকি ভুগছে ঘুষি আতঙ্কে। কথা নেই বার্তা নেই, পথচারীদের ওপর হঠাৎ আক্রমণ করছে দুষ্কৃতকারীরা। ভয়ঙ্কর ঘুষি মেরে পথচারীদের ফেলে দিচ্ছে রাস্তায়, অথচ পকেট বা ব্যাগ থেকে খোয়া যাচ্ছে না কিছুই।

মজার বিষয় হলো, ঘুষি মেরে পথচারীদের অজ্ঞান করাটা নাকি দেশটির এক শ্রেণীর তরুণের কাছে নতুন মজার খেলা। তারা এর নাম দিয়েছে ‘নকআউট গেম’।

বন্ধুদের সঙ্গে বাজি ধরে ঘুষি মেরে পথচারীদের অজ্ঞান করে দেয়ার এই ভয়ঙ্কর খেলায় এখন উদ্বিগ্ন দেশটির বিভিন্ন শহরের পুলিশ। গত কয়েকদিন ধরে ওয়াশিংটন, নিউইয়র্ক ও নিউজার্সির রাস্তায় এমন বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে। একা হাঁটতে বের হলেই এখন নাকি শহরের বাসিন্দারা আতঙ্কে থাকছেন ঘুষির ভয়ে। এ ধরনের ঘটনায় নাকি দুজন প্রাণ হারিয়েছেন বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, গত সেপ্টেম্বরে নিউজার্সির হোবোকেনে এক ব্যক্তির ওপর নাকি অতর্কিত চড়াও হয়েছিল কয়েকজন কিশোর। তাদের বেমাক্কা ঘুষিতে রাস্তার ধারে লোহার রেলিঙে মাথায় আঘাত পেয়ে প্রাণ হারান ওই পথচারী। পরে ওই কিশোরদের গ্রেপ্তার করলে জানা যায়, তারা ‘নকআউট গেম’ খেলছিল। একইভাবে অপর প্রাণহাণীর ঘটনাটি ঘটেছে নিউইয়র্কে।

সর্বশেষ দুই সপ্তাহ আগে ব্রুকলিনে আক্রান্ত হন ৭৮ বছর বয়সী এক নারী। গত শুক্রবারও ব্রুকলিনে এ ধরনের ঘটনার শিকার হয়েছিলেন দুই ব্যক্তি।

এদিকে ‘নকআউট গেম’ এর আতঙ্ক এখন ছড়িয়ে পড়েছে অন্য শহরগুলোতেও। শুক্রবারের ঘটনার জেরে ব্রুকলিনে মেয়েদের স্কুলের একটি সান্ধ্য অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে।

অন্যদিকে এই অদ্ভুত খেলার পেছনে অন্য কোনো উদ্দেশ্য বা মহলের হাত রয়েছে কিনা তা এখন খতিয়ে দেখছে পুলিশ। এর মাধ্যমে নতুন করে জাতিবিদ্বেষ ছড়ানো হচ্ছে কিনা তাও ভেবে দেখছে তারা। কারণ নিউইয়র্কে আক্রান্তদের বেশিরভাগই ইহুদি।

এ নিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগণ ও পুলিশ বেশ কয়েকটি মিটিং করেছে। জনপ্রতিনিধি ডোভ হিকিন্ড বলেন, ‘খুবই ভয়ঙ্কর ব্যাপার। আমার ৩১ বছরের কর্মজীবনে এমন ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা হয়নি।’

শেয়ার