মাগুরায় চারটি আঙ্গুলের বিনিময়ে সম্ভ্রম বাঁচালেন এক গৃহবধূ

মহম্মদপুর (মাগুরা) প্রতিনিধি॥ মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার নহাটার খলিশাখালী গ্রামে গতকাল শনিবার দুপুরে শাবানা বেগম (২৫) নামের এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হাতের চারটি আঙ্গুল বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। সম্ভ্রম রক্ষা করতে গেলে প্রতিপক্ষের লোকজন এ ঘটনা ঘটায় বলে গৃহবধুর অভিযোগ। গৃহবধূকে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
উপজেলার খলিশাখালী গ্রামের নাজমুল শেখের স্ত্রী শাবানা বেগম জানান, তিনি বেলা পৌনে দুইটার দিকে ঘরে বিশ্রাম নিচ্ছিলেন। এসময় তার স্বামী বাড়িতে ছিলেন না। নির্জনতা ও একাকিত্বের সুযোগে ঐ গ্রামের জঙ্গুলে, শহিদুল ও পান্নু নামের তিন বখাটে যুবক তার ঘরে প্রবেশ করে। অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তারা ধর্ষণের চেষ্টা করলে শাবানা বাধা দেয়। ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে বখাটেরা তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে পালিয়ে যায়। অস্ত্রের আঘাতে তার ডান হাতের চারটি আঙ্গুল বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এছাড়া শরীরের কয়েক জায়গায় কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। এ ব্যাপারে শাবানার ছেলে বলেন তার মায়ের ৪টি আঙ্গুল কেটে মাটিতে পড়ে যায়, তাৎক্ষণিক তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
গৃহবধূ শাবানার স্বামী নাজমুল শেখ বলেন, তিনি অন্যের জমিতে ধান কাটার কাজে প্রায়ই বাইরে থাকেন। এই ঘটনার পর থেকে তিনি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। সন্ধ্যায় তিনি মামলা করবেন বলে জানান।
মহম্মদপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম জানান, বিষয়টি তিনি শুনেছেন। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার