দেবহাটায় আ.লীগ নেতা আবু রায়হান হত্যাকাণ্ড সাতক্ষীরায় ১৪ দলের বিক্ষোভ সমাবেশ, দেবহাটায় মনববন্ধন

সিরাজুল ইসলাম, সাতক্ষীরা॥ সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক আবু রায়হানকে কুপিয়ে হত্যা ঘটনার দু’দিন পর দেবহাটা থানায় মামলা হয়েছে। নিহতের মা মিলি বেগম বাদী হয়ে শনিবার দুপুরে অজ্ঞাতদের আসামী করে মামলাটি দায়ের করেন। মামলা নং-৫। এই হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার সন্দেহে এ পর্যন্ত জামায়াত শিবিরের ২৫ নেতা কর্মীকে আটক করা হয়েছে।
গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে সাতীরায় ১৪ দলের উদ্যোগে বিােভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কে অনুষ্ঠিত সমাবেশ শেষে বিােভ মিছিল শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদনি করে। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবু নাসিম ময়না। বক্তব্য রাখেন, জেলা পরিষদের প্রশাসক মুনসুর আহমেদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু নাসিম ময়না, যুগ্ন সম্পাদক আবু আহমেদ, জেলা ওয়ার্কাস পার্টির সম্পাদক এড. মুস্তফা লুৎফুল্যাহ, জাসদের সভাপতি কাজী রিয়াজ, বাসদের নিত্যনন্দ সরকার প্রমূখ। এদিকে এদিন সকালে আবু রায়হানের খুনীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি ও গ্রেফতারের দাবীতে দেবহাটার পারুলিয়ায় নিহতের বাসভবনের সামনে মহাসড়কে মানববন্ধন করে স্থানীয়রা। এতে আবু রায়হানের বৃদ্ধা মা মিলি বেগম, স্ত্রী বিউটি খাতুন, শিশু পুত্র তন্ময় রায়হান, চাচাত ভাই শহিদুল ইসলাম প্রিন্সসহ পরিবারের সদস্যরা অংশ নেন।
আব্দুর রাজ্জাক পার্কে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তারা বলেন, আবু রায়হানের মত একজন উদিয়মান আওয়ামী লীগ নেতাকে হত্যা করে জামায়াত শিবির দেশে জঙ্গিবাদ প্রতিষ্ঠা করতে চায়। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে বাধাগ্রস্থ করতে তারা রায়হানকে হত্যা করে সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে চায়। বক্তারা হুশিয়ারী উচ্চারন করে বলেন, মুক্তিযুদ্ধের স্বপরে সংগঠনগুলি সম্মিলিত শক্তি নিয়ে মাঠে আছে। রাজাকার,আলবদরদের মনস্কামনা বাংলার মাটিতে পুরন হবে না বলেও বক্তারা হুশিয়ারী দেন। গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে দেবহাটা উপজেলার পারুলিয়া বাজারে আবু রায়হানকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার পর বাশি ফুকিয়ে স্লোগান দিতে দিতে ১০/১২ জন মুখোশধারী সন্ত্রাসী বীরদর্পে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এঘটনায় নিহতের পরিবার প্রথমে লাশের ময়না তদন্ত ও মামলা করতে রাজি না হয়নি। ঘটনার ২দিন পর মামলা করা হলেও কারোর নাম উলে“খ করা হয়নি।

শেয়ার