‘স্থায়ী পে কমিশন’ কাল

govt
সমাজের কথা ডেস্ক॥ জাতীয় বেতনস্কেলভুক্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য আগামী রোববার ‘স্থায়ী পে কমিশন’ ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।
শুক্রবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাংলাদেশ অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান।
এর আগে অ্যাসোসিয়েশনের একটি প্রতিনিধিদল গত ৩০ অক্টোবর অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে গেলে তিনি জানিয়েছিলেন, নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে স্থায়ী পে কমিশনের এই ঘোষণা আসবে।
বিভিন্ন ক্যাডার ও বিভাগের বেতন বৈষম্যের বিষয়গুলো চিহ্নিত করে সমাধানের সুপারিশ করতে ‘পে অ্যান্ড সার্ভিসেস কমিশন’ নামে আলাদা একটি কমিশন হবে বলেও সে সময় জানিয়েছিলেন তিনি।
মুহিত সে সময় অ্যাসোসিয়েশন নেতাদের জানান, স্থায়ী পে কমিশনের চেয়ারম্যানই পে অ্যান্ড সার্ভিসেস কমিশনের প্রধান হবেন। এই কমিশনের মেয়াদ হবে ছয় মাস।
এর আগে গত ৬ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য ২০ শতাংশ মহার্ঘ ভাতার ঘোষণা দেন।
পরদিন এর গেজেট জারি করে সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, এই মহার্ঘ ভাতা চলতি বছরের ১ জুলাই থেকেই কার্যকর হবে।
একটি স্থায়ী পে কমিশন গঠনের পরিকল্পনার কথা ওই সময়ই জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী।
সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য ২০০৭ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় সপ্তম পে কমিশন গঠন করা হয়। এরপর ২০০৯ সালের ১ জুলাই সর্বশেষ সরকারি চাকুরেদের বেতন-ভাতা বাড়ানো হয়।
বর্তমানে দেশে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীর সংখ্যা ১৩ লাখ। এর মধ্যে চাকরিতে সক্রিয় আছেন প্রায় ১১ লাখ।

শেয়ার