অবসরপ্রাপ্ত মেজর মোস্তফা বনির কাণ্ড ভালোবাসা প্রমাণে রক্ত উৎসর্গ !

endo
ইন্দ্রজিৎ রায়॥
যশোরের ২টি সংসদীয় আসনের (যশোর- ৩ ও ৫) সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী মেজর (অব:) আ.ন.ম মোস্তফা বনির কাণ্ডে হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে যশোর বিমান বন্দরে পথসভায় বক্তব্যদান কালে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, মণিরামপুরবাসীর জন্য আমি সব কিছু করতে পারি।” তিনি বলেন মনিরামপুরবাসীর জন্য রক্ত দিতেও প্রস্তুত। এমন বক্তব্য দিতে দিতে তিনি ব্লেড দিয়ে নিজের বাম হাত কেটে ফেলেন। একসময় রক্তপাত হলে তাকে নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে টানাটানি শুরু হয়ে যায়। পরে তাকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। হাতের কাটা স্থানে একাধিক সেলাই দেয়া হয়েছে।
বৃহস্পতিবার বেলা ১ টার দিকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায় তার ভক্তদের। যাদের মাথায়মেজর বনির ফেটা বাঁধা ছিল । এদের কয়েক জনের সাথে কথা বলে জানা যায় পুরো ঘটনা। তাদের একজন প্রত্যক্ষদর্শী মোটরসাইকেল চালক মণিরামপুরের নেহালপুর গ্রামের বাসিন্দা খন্দকার বিপ্লব হাসান।
তিনি বলেন, ‘মেজর বনিকে অভ্যর্থনা জানাতে মণিরামপুর থেকে ৬০টি মোটরসাইকেল বহর নিয়ে বিমান বন্দরে গিয়েছিলাম। তিনি বিমান বন্দরে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখছিলেন। এসময় তিনি নিজেই ব্লেড দিয়ে নিজের হাতে কাটেন। রক্তপাত হলে তিনি বলেন এই রক্ত মণিরামপুরবাসীর জন্য উৎসর্গ করলাম। তবে বেশি রক্তপাত হওয়ায় উপস্থিত নেতাকর্মীরা তাকে হাসপাতালে এনেছেন।’
মোটরসাইকেল বহরে আসা অপর সমর্থক খোরদেশ আলম বলেন, ‘উনি (মেজর অব: বনি) নিজেই হাত কেটে নেতাকর্মীদের রক্ত দেখাতে গিয়ে বেশি কেটে ফেলেছেন।’
একই কথা বলেন একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী। তারা বলেন, উনি এলাকাবাসীর জন্য ভালোবাসা দেখাতে নিজেই নিজের হাত কেটে বেকায়দায় পড়েছেন।
হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহণের সময় মেজর (অব:) বনির সাথে কথা বলার চেষ্ঠা করলে তিনি ঘটনা সম্পর্কে কিছু বলতে রাজি হননি। এসময় তিনি তার এক সমর্থক দেখিয়ে দিয়ে তার সাথে কথা বলার পরমর্শ দেন। তবে ওই সমর্থক দাবি করেন, দুই যুবক ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে গিয়েছে।
মোটরসাইকে চালকরা জানান, মণিরামপুর থেকে মোটরসাইকেল যোগে কিছু ভক্ত বিমান বন্দরে আসেন। প্রত্যেক মোটরসাইকেল ৪০০ টাকা করে ভাড়া করা হয়েছে।
এদিকে অবসরপ্রাপ্ত মেজর মোস্তফা বনির সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তার ভাই রাজু ফোন রিসিভ করেন। তিনি দাবি করেন, মোটরসাইকেল বহর নিয়ে আসার সময় অজ্ঞাত দুই যুবক ব্লেড দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যায়।

শেয়ার