৯ম জাতীয় সংসদের অধিবেশন শেষ, এবার নির্বাচন সরকার চালিয়ে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি

prisident
সমাজের কথা ডেস্ক॥ সংসদ অধিবেশন আর বসছে না জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, নির্বাচনকালীন সরকার পরিচালনায় রাষ্ট্রপতির অনুমতি পেয়েছেন তিনি।
বুধবার বিরোধী দলের অনুপস্থিতিতে সংসদে দেয়া বক্তৃতায় ‘সর্বদলীয়’ সরকার গঠনের প্রক্রিয়াগুলো তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, “রাষ্ট্রপতিকে অনুরোধ করেছি নির্বাচনের ব্যবস্থা নিতে। উনি ব্যবস্থা নেবেন। নির্বাচন বাংলার মাটিতে হবেই। নির্বাচন বানচাল করার ক্ষমতা কারো থাকবেন না।”
সংবিধান অনুযায়ী আগামী ২৪ জানুয়ারির মধ্যে দশম সংসদ নির্বাচন হবে, যার তফসিল আগামী সপ্তাহেই ঘোষণা হতে পারে বলে ইতোমধ্যে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন।
প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ ও তিন কমিশনার মঙ্গলবার বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করে নির্বাচনের প্রস্তুতি সম্পর্কে অবহিত করেন।
তার আগে ১৭ নভেম্বর বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির আবদুল হামিদের সঙ্গে দেখা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের বিষয়ে আলোচনা করেন।
পরদিন মন্ত্রিসভায় যোগ দেন আটজন নতুন সদস্য, যার মধ্যে দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাব অনুযায়ী গঠিত হয় সর্বদলীয় মন্ত্রিসভা।
আসন্ন নির্বাচনের সময় এই সরকারই ক্ষমতায় থাকবে। আর আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাই থাকবেন সেই সরকারে প্রধান।
অধিবেশনে তিনি বলেন, “এই সময়ে সরকার মৌলিক বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেবে না। কেবল রুটিন কাজ হবে।”
জরুরি অবস্থা ও যুদ্ধাবস্থার মতো কোনো জরুরি পরিস্থিতি দেখা না দিলে নির্বাচনের আগে আর সংসদ বসবে না বলেও প্রধানমন্ত্রী জানান।
অধিবেশন শেষ করার আগে এ বিষয়ে রাষ্ট্রপতির আদেশ পড়ে শোনান স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী।
গত ১৮ অক্টোবর জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচনকালীন এই ‘সর্বদলীয়’ মন্ত্রিসভা গঠনের প্রস্তাব দেন এবং বিরোধী দলকে তাতে যোগ দেয়ার আহ্বান জানান।
তবে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলনরত বিএনপি ও তাদের শরিকরা ওই প্রস্তাবে সাড়া দেয়নি। রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করে সংলাপের জন্য রাষ্ট্রপতির হস্তক্ষেপও চেয়েছেন বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়া।
২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর নির্বাচনে বিপুল বিজয়ের পর আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার গঠন করে। নবম জাতীয় সংসদের যাত্রা শুরু হয় ২০০৯ সালের ২৫ জানুয়ারি।
এই হিসাবে সংসদের মেয়াদ ২০১৪ সালের ২৪ জানুয়ারি শেষ হচ্ছে।

শেয়ার