সাতক্ষীরায় বিচারকের দায়েরকৃত মামলায় জামিন নিলেন ১৭ আইনজীবী ॥ বিচারককে অবাঞ্ছিত ঘোষণা ॥অবস্থান ধর্মঘট ও প্রতীকী অনশন কর্মসূচি

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি॥ সাতক্ষীরায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক ফকরুদ্দীনের দায়েরকৃত মামলায় জামিন নিয়েছেন আইনজীবীরা। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাড.এম শাহ আলম, সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আব্দুস সাত্তারসহ ১৭ জন আইনজীবী হাজির হয়ে জামিনের প্রার্থনা করলে সাতীরার মূখ্য বিচারিক হাকিম মো. শহিদুল ইসলাম তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।
এদিকে সাতীরা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের বিচারক মো. ফকরুদ্দীনের বিরুদ্ধে টানা তৃতীয় দিনের মত আইনজীবীদের আদালত বর্জনের কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে। তারা ওই বিচারককে সাতীরায় অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে বুধবার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের সামনে অবস্থান ধর্মঘট ও বৃহস্পতিবার প্রতীকী অনশন পালন করার নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন।
উল্লেখ্য, বিচার প্রার্থীদের হয়রানি, আইনজীবীদের সাথে দুর্ব্যবহার, ঘুষ, দুর্নীতিসহ বিভিন্ন অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে অপসারণের দাবিতে ১৭ নভেম্বর আইনজীবী সমিতির সভায় আদালত বর্জনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। পরদিন সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় বিচারক মো. ফকরুদ্দীন আদালতে এজলাসে বসে বিচার কাজ শুরু করলে ুব্ধ আইনজীবীরা হামলা চালিয়ে আদালতের কয়েকটি জানালার কাঁচ ভাংচুর করেন। এ ঘটনায় ওই বিচারক নিজেই বাদী হয়ে আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাড.এম শাহ আলম, সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আব্দুস সাত্তারসহ ১৭ জন আইনজীবীর বিরুদ্ধে সোমবার রাতে সাতীরা সদর থানায় দ্রুত বিচার আইনে একটি মামলা দায়ের করলে আইনজীবীরা আরও বেপরোয়া হয়ে যায়। বিচারক কর্তৃক আইনজীবীদের নামে মামলার ঘটনায় গতকাল দিনভর আদালত প্রাঙ্গন উত্তাল হয়ে উঠে। দিনের বিভিন্ন সময়ে তারা দফায় দফায় মিছিল ও সমাবেশ করে নানা ধরণের শ্লোগান দিয়ে বিচারককে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন।

শেয়ার