মৃত স্বামীর সঙ্গে এক বছর!

mrito
বাংলানিউজ ॥
স্বামীর কঙ্কালসার মৃতদেহের পাশেই এক বছর ঘুমিয়েছেন বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসের এক বিধবা! একটি বাড়িতে ভাড়ায় থাকা ওই বিধবাকে বাড়ি ছাড়ার জন্য বাড়িওয়ালা তাগাদা দিতে গেলেই এই লোমহর্ষক ঘটনা জানাজানি হয়।
ব্রাসেলসের আন্দেরলেক্ট জেলার ওই বাড়িটির বাড়িওয়ালা এবং প্রতিবেশিদের উদ্ধৃতি দিয়ে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম ল্য দেরনায়ার হিউরে এই খবর জানায়।
সংবাদ মাধ্যমটিতে প্রকাশিত ছবিতে দেখা যায়, বিশ্রী ধরনের সাদা সাদা গোঁফওয়ালা কৃশকায় দেহী লোকটির চোখের কোটরগুলো ভেতরে ঢুকে রয়েছে। ভয়ংকরভাবে বেরিয়ে পড়েছে শরীরের হাড়গুলো। এই কঙ্কালসার মৃতদেহটিকেই শাল দিয়ে জড়িয়ে রেখেছেন বিধবা!
সংবাদ মাধ্যমটি জানায়, ৭৩ বছর বয়সী মৃত লোকটি রাজধানী ব্রাসেলসের কাছে আন্দেরলেক্ট জেলার বাড়িটিতে একযুগেরও বেশি সময় ধরে ছিলেন।
প্রাথমিক তথ্য মতে জানা যায়, গতবছরই তিনি বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান।
সংবাদমগুলো জানায়, গত বছরের নভেম্বর থেকে বাড়ি ভাড়া দিচ্ছিলেন না ভাড়াটিয়া বিধবা। কিন্তু চুক্তির চেয়ে অনেক বেশি সময় অতিক্রম হওয়ায় বাড়ি ছাড়তে তাকে তাগাদা দিতে যান বাড়িওয়ালা। তখনই মৃত লোকটিকে এভাবে দেখতে পান তিনি।
বাড়িওয়ালা বলেন, আমি অনেক মৃত মানুষ দেখেছি…কিন্তু এই অবস্থায় দেখিনি। ভয়ংকর অবস্থা। এক বছর ধরে স্বামীর মৃতদেহের পাশে ঘুমিয়েছিলেন বিধবা!
প্রতিবেশিরা জানান, গত বেশ কয়েকমাস ধরে ওই বাড়িটি থেকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছিল। কিন্তু কেউই এ ধরনের ভয়ংকর অবস্থার কথা চিন্তা করতে পারেননি। এছাড়া, ৬৯ বছর বয়সী ওই বিধবা সম্প্রতি ময়লা আবর্জনা ফেলতেও বাইরে আসছিলেন না বলে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা করছিলেন প্রতিবেশিরা।
প্রতিবেশিরা আরও জানান, আমরা বৃদ্ধ সম্পর্কে তার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলতেন, তার স্বামী চিকিৎসা নিচ্ছেন। কিন্তু এর পেছনে কতো ভয়ংকর ঘটনা লুকিয়েছিল কেউ তা ভাবনায়ও আনতে পারেনি।
ওই বিধবা নারী মানসিক অবসাদগ্রস্ত ছিলেন কিনা এ বিষয়টি পরিষ্কার নয়। কারণ, তিনি স্বাভাবিকভাবেই রান্না-বান্নার কাজ করে নিজে খাবার-দাবার সারতেন।
প্রতিবেশিদের কেউ কেউ বলছেন, স্বামীর প্রতি অতি দুর্বলতা থেকেই এমন ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারেন বৃদ্ধা।

শেয়ার