তোপের মুখে দুদক আইনজীবীরা

বাংলানিউজ ॥
অর্থপাচার (মানিলন্ডারিং) মামলায় বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান খালাস পাওয়ায় আওয়ামী পক্ষের আইনজীবীদের তোপের মুখে পড়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক)আইনজীবীরা।
রায় ঘোষণার পর আওয়ামী পক্ষের আইনজীবীরা দুদক আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল ও আনিসুল হককে চোর বাটপার বলে হট্টগোল শুরু করে। তারা বলেন, দুদক আইনজীবীরা টাকা খেয়েছেন।
তারা বিচারকদের দালাল দালাল বলে চিৎকার করেন, আদালতের দরজায় লাথি মারেন ও গ্লাস ভাঙচুরের চেষ্টা করেন। এ সময় তারা প্রায় আধঘণ্টা দুদক আইনজীবীদের ঘেরাও করে রাখেন।
তবে মামলার রায় ঘোষণার পর দুদক আইনজীবীরা কোনো প্রতিক্রিয়া দেননি। সম্পূর্ণ রায় না পাওয়া পর্যন্ত তারা কোনো প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করবেন না বলে জানান আনিসুল হক। পরে তারা আদালত থেকে বেরিয়ে যান।
এদিকে রায় ঘোষণার পর বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা আনন্দ মিছিল বের করেন।
রোববার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে তারেকের বন্ধু গিয়াস উদ্দিন আল মামুনকে অর্থপাচার (মানিলন্ডারিং) মামলায় ৭ বছর কারাদ- ও ৪০ কোটি টাকা জরিমানা করলেও তারেককে বেকসুর খালাস দেন ঢাকার একটি বিশেষ জজ আদালত।
রায়ে মামুনকে দ-ের পাশাপাশি তার পাচারকৃত ২০ কোটি ৪১ লাখ ২৫ হাজার ৬১৩ টাকা রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করারও নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।
মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন- ২০০২ এর ২(ঠ), (অ), (আ) ও ১৩ ধারায় এ সাজা দেওয়া হয়।
ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. মোতাহার হোসেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা মামলাটির রায় ঘোষণা করেন। মামলা দায়েরের ৪ বছর ২১ দিন পর এ মামলার রায় দেওয়া হলো।

শেয়ার