হরতালের নাশকতায় মৃত্যুমিছিলে আরও দু’জন

বাংলানিউজ ॥
হরতালকারীদের আগুন ও সহিংসতায় মৃত্যুর মিছিলে যোগ হলেন আর দু’জন। হরতালকারীদের ছোঁড়া পেট্রোল বোমায় অগ্নিদগ্ধ মণ্টু পাল চলে গেলেন না ফেরার দেশে। শুক্রবার ভোরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে মারা গেছেন তিনি।
অপরদিকে, হরতাল সহিংসতায় মৃত্যুর মিছিলে যোগ হলেন সিএনজি অটোরিকসা চালক আসাদ গাজী (৪০)। শুক্রবার রাত ২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালের (ঢামেক) আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।
হরতাল সমর্থনে রোববার রাত সোয়া নয়টায় রাজধানীর লক্ষ্মীবাজারে কাজী নজরুল ইসলাম কলেজের সামনে একটি লেগুনাতে পেট্রোল বোমা ছুঁড়ে আগুন লাগিয়ে দেন হরতাল সমর্থকরা। এ ঘটনায় অগ্নিদগ্ধ হন সাতজন। তাদের একজন ছিলেন পুরান ঢাকার তাঁতী বাজারের স্বর্নের দোকানের কারিগর মণ্টু চন্দ্র পাল (৪০)। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের সবাইকে ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছিল।
অন্যদিকে, ১৮ দলের ডাকা হরতালে গত ৪ নভেম্বর সাভার ক্যান্টনমেন্ট গেটের কাছে সিএনজি অটোরিকশায় আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা।
সেই ঘটনায় সিএনজি চালক আসাদ গাজী ও যাত্রী মুকুলসহ আরো একজন অগ্নিদগ্ধ হন। অগ্নিদগ্ধ ওই তিনজনকে ৪ তারিখ রাতেই ঢামেকের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করানো হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঘটনায় পরদিনই মারা যান অটোরিকসা যাত্রী মুকুল (৩৬)।
ঢামেক বার্ন ইউনিটে মৃত্যুর সঙ্গে কয়েকদিন পাঞ্জা লড়ে অবশেষে অটোরিকসা চালক আসাদ গাজীও বিদায় নিলেন।
এ নিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে ডাকা ১৮ দলীয় জোটের কয়েকটি হরতাল সহিংসতায় অগ্নিদগ্ধ হয়ে নিহতের সংখ্যা দাঁড়ালো ছয়।
বাংলানিউজ
হরতালকারীদের আগুন ও সহিংসতায় মৃত্যুর মিছিলে যোগ হলেন আর দু’জন। হরতালকারীদের ছোঁড়া পেট্রোল বোমায় অগ্নিদগ্ধ মণ্টু পাল চলে গেলেন না ফেরার দেশে। শুক্রবার ভোরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে মারা গেছেন তিনি।
অপরদিকে, হরতাল সহিংসতায় মৃত্যুর মিছিলে যোগ হলেন সিএনজি অটোরিকসা চালক আসাদ গাজী (৪০)। শুক্রবার রাত ২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালের (ঢামেক) আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।
হরতাল সমর্থনে রোববার রাত সোয়া নয়টায় রাজধানীর লক্ষ্মীবাজারে কাজী নজরুল ইসলাম কলেজের সামনে একটি লেগুনাতে পেট্রোল বোমা ছুঁড়ে আগুন লাগিয়ে দেন হরতাল সমর্থকরা। এ ঘটনায় অগ্নিদগ্ধ হন সাতজন। তাদের একজন ছিলেন পুরান ঢাকার তাঁতী বাজারের স্বর্নের দোকানের কারিগর মণ্টু চন্দ্র পাল (৪০)। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের সবাইকে ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছিল।
অন্যদিকে, ১৮ দলের ডাকা হরতালে গত ৪ নভেম্বর সাভার ক্যান্টনমেন্ট গেটের কাছে সিএনজি অটোরিকশায় আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা।
সেই ঘটনায় সিএনজি চালক আসাদ গাজী ও যাত্রী মুকুলসহ আরো একজন অগ্নিদগ্ধ হন। অগ্নিদগ্ধ ওই তিনজনকে ৪ তারিখ রাতেই ঢামেকের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করানো হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঘটনায় পরদিনই মারা যান অটোরিকসা যাত্রী মুকুল (৩৬)।
ঢামেক বার্ন ইউনিটে মৃত্যুর সঙ্গে কয়েকদিন পাঞ্জা লড়ে অবশেষে অটোরিকসা চালক আসাদ গাজীও বিদায় নিলেন।
এ নিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে ডাকা ১৮ দলীয় জোটের কয়েকটি হরতাল সহিংসতায় অগ্নিদগ্ধ হয়ে নিহতের সংখ্যা দাঁড়ালো ছয়।

শেয়ার