সর্বদলীয় মন্ত্রিসভার শপথ আজ

PMPresident
সমাজের কথা ডেস্ক॥ নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকারের মন্ত্রিসভা গঠন করা হচ্ছে আজ সোমবার। এইদিন বঙ্গভবনে শপথ নেবেন এই সরকারের মন্ত্রীরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদের সঙ্গে দেখা করে সর্বদলীয় সরকারের ধারণা দেন।

দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে এই সর্বদলীয় সরকারে যোগ দিচ্ছে জাতীয় পার্টি। থাকছে ওয়ার্কার্স পার্টিও।

আওয়ামী লীগ থেকে উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমীর হোসেন আমু ও তোফায়েল আহমেদ নতুন এই মন্ত্রিসভায় থাকছেন বলে জানিয়েছে একাধিক দলীয় সূত্র।

আমীর হোসেন আমুর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বাংলানিউজকে জানান, সোমবার বঙ্গভবনের দরবার হলে মন্ত্রিসভায় শপথ নেওয়ার জন্য তাকে জানানো হয়েছে। তিনি যাচ্ছেন শপথ নিতে।

ওয়ার্কার্স পার্টির চেয়ারম্যান রাশেদ খান মেননও বাংলানিউজকে জানিয়েছেন, দরবার হলে মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে যাওয়ার নিমন্ত্রণ পেয়েছেন। তিনিও যাচ্ছেন শপথ নিতে।

এদিকে, জাতীয় পার্টির দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, সর্বদলীয় সরকারে তাদের দলের হয়ে যোগ দিচ্ছেন রওশন এরশাদ, আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, জিএম কাদের, মুজিবুল হক চুন্নু ও রুহুল আমিন হাওলাদার।

আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বাংলানিউজকে জানিয়েছেন, সোমবার বঙ্গভবনের দরবার হলে মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে যাওয়ার নিমন্ত্রণ তিনি পেয়েছেন।

এর আগে রোববারের বৈঠকই বর্তমান মন্ত্রিসভার শেষ বৈঠক হিসেবে জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শিগগিরই নতুন মন্ত্রিসভা গঠন হবে বলেও জানান তিনি। তারই ধারাবাহিকতায় রোববার সন্ধ্যায় রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করে নতুন মন্ত্রিসভার রূপ ও গঠন প্রকৃতি নিয়ে কথা বলেন।

ওই বৈঠকের পর মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোশাররাফ হোসাইন ভূঁইয়া এক ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের বলেন, রাষ্ট্রপতিকে সর্বদলীয় সরকার গঠন পদ্ধতি অবহিত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই মন্ত্রিসভা দিয়েই আগামী নির্বাচন পর্যন্ত সরকার পরিচালিত হবে বলেও জানিয়েছেন।

মোশাররাফ হোসাইন ভূঁইয়া জানান, রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রীর সর্বদলীয় সরকারের ধারণাকে স্বাগত জানান এবং অন্তর্র্বতীকালীন সরকারের সার্বিক সাফল্যও কামনা করেন।

এসময় সোমবার বিকেলে কয়েকজন মন্ত্রী শপথ নেবেন বলেও সাংবাদিকদের কাছে নিশ্চিত করেন মোশাররাফ হোসাইন ভূঁইয়া।

তবে কতজন নিয়ে নতুন মন্ত্রিসভা হচ্ছে সে ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট করে কিছু জানাতে পারেননি মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

এদিকে সূত্র জানিয়েছে নতুন মন্ত্রিসভায় ২০ জন সদস্য থাকছে। এদের মধ্যে মহাজোটের শরিক দলগুলো থেকে ১৫ জন সদস্য মন্ত্রিসভায় স্থান পাবে। বাকি পাঁচজন সদস্যের পদ এখন ফাঁকা রাখা হবে।

ধারণা করা হচ্ছে বিএনপি এই সরকারে যোগ দিলে তারা এই পদগুলো পূরণ করবেন।

নতুন মুখের পাশাপাশি পুরোনো কয়েকজন মন্ত্রিসভায় থাকছেন। এরা কেউ সোমবার শপথ নিতে যাচ্ছেন না। মন্ত্রী হিসেবে ইতোমধ্যেই শপথ থাকার কারণেই তাদের শপথ নেওয়ার প্রয়োজন নেই এমনটাই বাংলানিউজকে জানিয়েছেন যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। সর্বদলীয় সরকারে তারা থাকছেন বলেও নিশ্চিত করেছেন এই দুই মন্ত্রী।

তবে শেষ পর্যন্ত নতুন মন্ত্রিসভার রূপটি কি হবে, কতজন থাকছেন, বর্তমান মন্ত্রিসভার কতজন নতুন মন্ত্রিসভায় স্থান পাবেন, কতজন নতুন যোগ দেবেন, কোন দলের হিস্যা কত থাকছে তা জানতে সোমবার বিকেলে বঙ্গভবনের দরবার হলে অনুষ্ঠেয় শপথ অনুষ্ঠান পর্যন্তই অপেক্ষা করতে হবে।
নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকারের মন্ত্রিসভা গঠন করা হচ্ছে আজ সোমবার। এইদিন বঙ্গভবনে শপথ নেবেন এই সরকারের মন্ত্রীরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদের সঙ্গে দেখা করে সর্বদলীয় সরকারের ধারণা দেন।

দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে এই সর্বদলীয় সরকারে যোগ দিচ্ছে জাতীয় পার্টি। থাকছে ওয়ার্কার্স পার্টিও।

আওয়ামী লীগ থেকে উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমীর হোসেন আমু ও তোফায়েল আহমেদ নতুন এই মন্ত্রিসভায় থাকছেন বলে জানিয়েছে একাধিক দলীয় সূত্র।

আমীর হোসেন আমুর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বাংলানিউজকে জানান, সোমবার বঙ্গভবনের দরবার হলে মন্ত্রিসভায় শপথ নেওয়ার জন্য তাকে জানানো হয়েছে। তিনি যাচ্ছেন শপথ নিতে।

ওয়ার্কার্স পার্টির চেয়ারম্যান রাশেদ খান মেননও বাংলানিউজকে জানিয়েছেন, দরবার হলে মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে যাওয়ার নিমন্ত্রণ পেয়েছেন। তিনিও যাচ্ছেন শপথ নিতে।

এদিকে, জাতীয় পার্টির দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, সর্বদলীয় সরকারে তাদের দলের হয়ে যোগ দিচ্ছেন রওশন এরশাদ, আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, জিএম কাদের, মুজিবুল হক চুন্নু ও রুহুল আমিন হাওলাদার।

আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বাংলানিউজকে জানিয়েছেন, সোমবার বঙ্গভবনের দরবার হলে মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে যাওয়ার নিমন্ত্রণ তিনি পেয়েছেন।

এর আগে রোববারের বৈঠকই বর্তমান মন্ত্রিসভার শেষ বৈঠক হিসেবে জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শিগগিরই নতুন মন্ত্রিসভা গঠন হবে বলেও জানান তিনি। তারই ধারাবাহিকতায় রোববার সন্ধ্যায় রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করে নতুন মন্ত্রিসভার রূপ ও গঠন প্রকৃতি নিয়ে কথা বলেন।

ওই বৈঠকের পর মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোশাররাফ হোসাইন ভূঁইয়া এক ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের বলেন, রাষ্ট্রপতিকে সর্বদলীয় সরকার গঠন পদ্ধতি অবহিত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই মন্ত্রিসভা দিয়েই আগামী নির্বাচন পর্যন্ত সরকার পরিচালিত হবে বলেও জানিয়েছেন।

মোশাররাফ হোসাইন ভূঁইয়া জানান, রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রীর সর্বদলীয় সরকারের ধারণাকে স্বাগত জানান এবং অন্তর্র্বতীকালীন সরকারের সার্বিক সাফল্যও কামনা করেন।

এসময় সোমবার বিকেলে কয়েকজন মন্ত্রী শপথ নেবেন বলেও সাংবাদিকদের কাছে নিশ্চিত করেন মোশাররাফ হোসাইন ভূঁইয়া।

তবে কতজন নিয়ে নতুন মন্ত্রিসভা হচ্ছে সে ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট করে কিছু জানাতে পারেননি মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

এদিকে সূত্র জানিয়েছে নতুন মন্ত্রিসভায় ২০ জন সদস্য থাকছে। এদের মধ্যে মহাজোটের শরিক দলগুলো থেকে ১৫ জন সদস্য মন্ত্রিসভায় স্থান পাবে। বাকি পাঁচজন সদস্যের পদ এখন ফাঁকা রাখা হবে।

ধারণা করা হচ্ছে বিএনপি এই সরকারে যোগ দিলে তারা এই পদগুলো পূরণ করবেন।

নতুন মুখের পাশাপাশি পুরোনো কয়েকজন মন্ত্রিসভায় থাকছেন। এরা কেউ সোমবার শপথ নিতে যাচ্ছেন না। মন্ত্রী হিসেবে ইতোমধ্যেই শপথ থাকার কারণেই তাদের শপথ নেওয়ার প্রয়োজন নেই এমনটাই বাংলানিউজকে জানিয়েছেন যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। সর্বদলীয় সরকারে তারা থাকছেন বলেও নিশ্চিত করেছেন এই দুই মন্ত্রী।

তবে শেষ পর্যন্ত নতুন মন্ত্রিসভার রূপটি কি হবে, কতজন থাকছেন, বর্তমান মন্ত্রিসভার কতজন নতুন মন্ত্রিসভায় স্থান পাবেন, কতজন নতুন যোগ দেবেন, কোন দলের হিস্যা কত থাকছে তা জানতে সোমবার বিকেলে বঙ্গভবনের দরবার হলে অনুষ্ঠেয় শপথ অনুষ্ঠান পর্যন্তই অপেক্ষা করতে হবে।

শেয়ার