বোমা বিস্ফোরণ মামলায় যশোরে বিএনপি’র ৯ ক্যাডার আটক॥ ৯ টি তাজা বোমা উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোরে পৃথক অভিযান চালিয়ে বিএনপি’র ৯ ক্যাডারকে আটক করেছে পুলিশ। তাদের সকলের বিরুদ্ধে বোমা বিস্ফোরনের মামলা রয়েছে। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৮ টি তাজা বোমা উদ্ধার করা হয়। আটককৃতরা হলো, শহরের রেলগেট এলাকার হাসান মিস্ত্রির ছেলে রিপন, চাঁচড়া রায়পাড়ার শওকত আলীর ছেলে আব্দুল হক, বেজপাড়া বনানী সড়কের দেলোয়ার হোসেনের ছেলে সুমন, স্টেডিয়ামপাড়ার বিল্লাল হোসেনের ছেলে রিয়াজুল ইসলাম সুমন, বারান্দীপাড়া লিচুতলার শাহজাহান মুন্সির ছেলে হুমায়ুন কবির, পাইপ পট্টির ওলিয়ার রহমানের ছেলে শামিমুর রহমান সুমিত, পশ্চিম বারান্দীপাড়ার হাজী মুনসুর আহম্মেদের ছেলে আব্দুল করিম, খায়রুল আলমের ছেলে সৈয়দ আকবার হোসেন তোতা, ও সদর উপজেলার ভাতুড়িয়া গ্রামের ইসমাইল হোসেনের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক।
পুলিশ জানায়, বৃহস্পতি ও শুক্রবার রাতে কোতোয়ালি থানা পুলিশের একাধিক টিম শহরের বিভিন্নস্থানে অভিযান চালায়। এ অভিযানে তাদের আটক করা হয়। আটককৃত শামিমুর রহমান সুমিত ও সৈয়দ আকবার হোসেন তোতার বিরুদ্ধে ২৭ অক্টোবর যশোর মেডিকেল কলেজা হাসপাতালের গেটে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদারকে লক্ষ করে বোমা বিস্ফোনের মামলা রয়েছে। অপর সাতজন আসামির বিরুদ্ধে ৬ নভেম্বর শহরের দড়াটানায় জাকির হোসেন নামে এক ব্যক্তির উপর বোমা হামলার অভিযোগে মামলা রয়েছে। এর মধ্যে ভাতুড়িয়া থেকে আটক আব্দুর রাজ্জাককে ৫ টি বোমাসহ আটক করে পুলিশ। এ ছাড়া তার বিরুদ্ধে ইতিপূর্বে সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজি ও বোমা হামলাসহ একাধিক মামলা রয়েছে। এদিন পুলিশ তার বাড়ির ঘরের সামনে বালির মধ্যে রাখা ওই বোমাসহ আটক করে। অপর দিকে পুলিশ শহরের বকচর এলাকা থেকে পরিত্যাক্ত অবস্থায় তিনটি বোমা উদ্ধার করে। আটককৃরা বিএনপির সশস্ত্র ক্যাডার। বিভিন্ন সময়ে হরতালে ব্যবহারের জন্য ওই বোমা তৈরি এবং তা সংরক্ষন করছিল বলে পুলিশ জানিয়েছে।

শেয়ার