ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের সর্ববৃহৎ প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ী পরীক্ষা ২০ নভেম্বর

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ ২০ নভেম্বর ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের সর্ববৃহৎ প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ী পরীক্ষা শুরু হবে। পরীক্ষায় অংশ নিতে শেষ মুহূর্তের পড়ালেখায় ব্যস্ত শিক্ষাথীরা। কিন্তু ১৮ দলের হরতাল অব্যাহত থাকায় নির্দিষ্ট সময়ে পরীক্ষা অনুষ্টিত হওয়া নিয়ে বিচলিত শিক্ষক ও অবিভাবকরা। পরীক্ষা নিয়ে অনিশ্চয়তার দোলাচলে রয়েছে যশোর জেলার ৪৫ হাজার ৮১৭ জন পরীক্ষার্থী ।
জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, এ বছর যশোর জেলা থেকে ৪৫ হাজার ৮১৭ জন পরীক্ষার্থী প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে। এর মধ্যে বালক ২১ হাজার ৯৫০ জন ও বালিকা ২৩ হাজার ৮৬৭ জন রয়েছে। এছাড়া ইবতেদায়ী পরীক্ষার্থী সংখ্যা ৬৫ হাজার ৯৩ জন। জেলার ১৩২টি কেন্দ্রে এ পরীক্ষা অনুষ্টিত হবে। সদর উপজেলার ২৩টি কেন্দ্রে পরীক্ষার্থী রয়েছে ১২ হাজার ৩৮১ জন। তার মধ্যে বালক ৫ হাজার ৮৪০ জন ও বালিকা ৬ হাজার ৫৪১ জন। শার্শার ১৩ টি কেন্দ্র থেকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে ৫ হাজার ৬৭৯ জন। তার মধ্যে বালক ২ হাজার ৬৬৬ জন ও বালিকা ৩ হাজার ১৩ জন। মণিরামপুরের ২১টি কেন্দ্রে পরীক্ষার্থী ৭ হাজার ৫৩ জন। বালক ৩ হাজার ৪৯৭ জন বালিকা ৩ হাজার ৫৫৬ জন। বাঘারপাড়ায় ১৭টি কেন্দ্রে পরীক্ষার্থী ৩ হাজার ৩৫৯ জন। বালক ১ হাজার ৭০২ জন ও বালিকা ১ হাজার ৬৫৭ জন । ঝিকরগাছায় ১২টি কেন্দ্রে পরীক্ষার্থী ৫ হাজার ২২১ জন। বালক ২ হাজার ৪৬১ জন, বালিকা ২ হাজার ৭৬০ জন। চৌগাছায় ১৮টি কেন্দ্রে পরীক্ষার্থী ৪হাজার ৩৬১ জন। তার মধ্যে বালক ২ হাজার ৬৭ জন ও বালিকা ২ হাজার ২৯৪ জন। কেশবপুরের ১৭টি কেন্দ্রে পরীক্ষার্থী ৩ হাজার ৯১২ জন। বালক ১ হাজার ৮৯৪ জন ও বালিকা ২ হাজার ১৭ জন। অভয়নগরে ১১টি কেন্দ্রে পরীক্ষার্থী ৩হাজার ৮১৭ জন। তার মধ্যে বালক ১ হাজার ৮০৫ জন ও বালিকা ২ হাজার ১২ জন। ইবতেদায়ী পরীক্ষায় যশোর সদরে ৫২টি মাদ্রাসায় পরীক্ষার্থী ১ হাজার ১২৫ জন। বালক ৪৯১ জন, বালিকা ৬৩৪ জন। শার্শায় ৩৬টি মাদ্রাসায় পরীক্ষার্থী ৭০৯ জন। বালক ৩১৩জন, বালিকা ৩৯৬ জন। অভয়নগরে ২৪টি মাদ্রাসায় পরীক্ষার্থী ৬৪২ জন। বালক ২৯৩ জন, বালিকা ৩৪৯ জন। কেশবপুরে ৫৭টি মাদ্রাসায় পরীক্ষার্থী ৮৭৪ জন। বালক ৪৩৬ জন, বালিকা ৪৩৮ জন। চৌগাছায় ২২টি মাদ্রাসায় পরীক্ষার্থী ৪১৭ জন। বালক ২৩৯ জন, বালিকা ১৭৮ জন, ঝিকরগাছায় ৩৪টি মাদ্রাসায় পরীক্ষার্থী ৬৬৮ জন। বালক ৩৭৭ জন, বালিকা ২৯১ জন। বাঘারপাড়ায় ৩৬টি মাদ্রাসায় পরীক্ষার্থী ৮৭০ জন। বালক ৩৬৬ জন বালিকা ৫০৪ জন। মণিরামপুরে ৮০টি মাদ্রাসায় প্রাথমিক সমাপনীতে ১ হাজার ২শ’ ৩৮জন। এরমধ্যে বালক ৬৫০ জন, বালিকা ৬৮৪ জন। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সুব্রত কুমার বণিক বলেন, পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্নের জন্য সব ধরণের ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। তবে যথা সময়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়া নিয়ে তিনি শঙ্কা প্রকাশ করেন ।

শেয়ার