সাতক্ষীরায় চোরাচালানিদের গাড়ি চাপায় বিজিবি সদস্য নিহত ॥ মণিরামপুরে দাফন সম্পন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক, মণিরামপুর ও সাতক্ষীরা প্রতিনিধি॥ সাতক্ষীরায় চোরাচালানিদের পণ্যবাহী ট্রাক চাপায় এক বিজিবি সদস্য নিহত হয়েছেন। এসময় গুরুতর আহত হয়েছেন বিজিবি’র এক হাবিলদার। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টায় সাতক্ষীরা-কালিগঞ্জ সড়কের বাকাল আলিপুর নাথপাড়া নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে। নিহত বিজিবি সদস্যের নাম আব্দুল জব্বার (৩৫)। আহত হাবিলদারের নাম আব্দুর রশীদ (৪৮)। তারা দু’জনই সাতক্ষীরা ৩৮ বিজিবি’র আওতাধীন ভোমরা বিওপিতে কর্মরত। নিহত আব্দুল জব্বারের বাড়ি যশোর জেলার মণিরামপুর উপজেলার কোদলাপাড়া গ্রামে। আহত হাবিলদারের বাড়ি ঝালকাঠি জেলায়।
বিজিবি সূত্র জানায়, চোরাচালানির পণ্য নিয়ে একটি পণ্যবাহী ট্রাক সাতক্ষীরা অভিমুখে আসছিল। এখবর পেয়ে একটি মোটরসাইকেলযোগে ওই দু’বিজিবি সদস্য সদর উপজেলার নাথপাড়া এলাকায় অবস্থান নেয়। ট্রাকটি আসা মাত্রই বিজিবি সদস্যরা তাদের থামতে সংকেত দেয়। বিজিবি’র উপস্থিতি টের পেয়ে মোটরসাইকেলসহ বিজিবি সদস্যদের চাপা দিয়ে চোরাচালানির গাড়িটি নিয়ে দ্রুত চলে যায়। ঘটনাস্থলেই নিহত হন বিজিবি সদস্য আব্দুল জব্বার ও গুরুতর আহত হন হাবিলদার রশীদ। তাদের ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটিও এ সময় দুমড়ে মুচড়ে যায়। খবর পেয়ে সাতক্ষীরা ৩৮ বিজিবি’র কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল থেকে তাদের উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন। সাতক্ষীরা ৩৮ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্নেল ইমাম আহসান এ ঘটনা নিশ্চিত করেছেন।
সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. মারুফ হাসান জানান, আহত বিজিবি সদস্যকে যশোর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।
এদিকে, চোরাচালানিদের পিকআপ চাপায় নিহত বিজিবি সদস্য আব্দুল জব্বারের (৩৫) দাফন তার নিজ বাড়ি মণিরামপুরের কোদলাপাড়া গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে সম্পন্ন হয়েছে।
বুধবার নিহত আব্দুল জব্বারের লাশবাহী বিজিবি’র গাড়িবহর তার গ্রামের বাড়িতে পৌছালে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়। লাশ পৌছানোর পর বারবার মুর্ছা যাচ্ছিলেন তার ৭ মাসের সন্তান সম্ভবা স্ত্রী মাহমুদা সুলতানা কেয়া। লাশ পৌছানোর আগেই তার বাড়িতে উপস্থিত হন বিজিবি দক্ষিণ-পশ্চিম রিজিওনের রিজিওনাল কমান্ডার ব্রিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সামছ্, খুলনা সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মো. নুরুল হুদা, পরিচালক লে. কর্নেল মুস্তাফিজ, ৩৮ ব্যাটেলিয়ান সাতক্ষীরার অধিনায়ক লে. কর্নেল ইমাম, ডিকিউ মেজর আমানসহ বিজিবির সদস্যবৃন্দ। এসময় বিজিবি’র মহাপরিচালকের পক্ষ থেকে নিহতের পরিবারকে ৫ লাখ টাকার চেক ও নগদ ২০ হাজার টাকাসহ বিভিন্ন সহযোগিতা প্রদান করা হয়।

শেয়ার