বিএনপিকে নির্বাচনে ডাকা অর্থহীন: নাসিম

nasim
সমাজের কথা ডেস্ক॥ বিএনপি চেয়ারপারসন জামায়াত ও হেফাজতের ‘এজেন্ডা’ বাস্তবায়নে মরিয়া হয়ে উঠেছেন মন্তব্য করে আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, নির্বাচনে অংশ নিতে তাদের আহ্বান জানানোর কোনো অর্থ হয় না।
একইসঙ্গে মুক্তিযুদ্ধের ‘পক্ষের’ সব দলকে নির্বাচনে অংশ নিয়ে প্রয়োজনে আওয়ামী লীগের সমালোচনা করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।
বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে পঙ্কজ ভট্টাচার্যের নেতৃত্বাধীন ঐক্য ন্যাপের সঙ্গে ১৪ দলের বৈঠক শেষে ক্ষমতাসীন দলের নেতা নাসিম একথা বলেন।
তিনি বলেন, “বিএনপিকে নির্বাচনে ডাকার অর্থ হয় না। তিনি (খালেদা জিয়া) এখন জামায়াত-শিবির-হেফাজতের এজেন্ডা বাস্তবায়নে মরিয়া।”
মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সব রাজনৈতিক দলকে নির্বাচনে আসার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “১৪ দল আশা করে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সকল গণতান্ত্রিক দল যার যার অবস্থান থেকে নির্বাচনে অংশ নেবে।
“নির্বাচনের মাঠে আমাদের ১৪ দলের ভুল-ত্রুটি তুলে ধরবেন। সংসদে গিয়ে আমাদের সমালোচনা করবেন।”
উৎসব মুখর পরিবেশে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।
বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলের হরতালে সহিংসতার সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য নাসিম বলেন, “যখন প্রধানমন্ত্রী ১০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের উৎসব করছেন তখন বেগম জিয়া মানুষ পোড়ানোর উৎসব করছেন।”
হরতালের মধ্যে বিএনপি নেতারা গাড়িতে চলাচল করেন অভিযোগ করে তিনি বলেন, “টিভি ক্যামেরায় দেখেছি- বিএনপি নেতারা, শিক্ষক নেতারা দামি দামি গাড়ি চড়ে খালেদা জিয়ার আলোক উজ্জ্বল বৈঠকখানায় গেলেন।
“কই, তাদের গাড়ি তো প্রতিরোধের মুখে পড়েনি। আর হরতালে বাস চালিয়েছে বলে মানুষ পোড়ানো হলো।”
বিরোধী দলের টানা ৮৪ ঘণ্টার হরতাল শেষে বুধবার রাত সোয়া ৮টার দিকে গুলশানের বাসা থেকে নিজের রাজনৈতিক কার্যালয়ে যান বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়া।
এসময় বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা এবং সমমনা শিক্ষকরা তার সঙ্গে দেখা করেন।
ঐক্য ন্যাপ সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্য বলেন, “আমরা সাংবিধানিক পদ্ধতি ছাড়া অন্য কোনো পদ্ধতিতে ক্ষমতার পরিবর্তন চাই না।”
“আমাদের ভিন্নমত থাকতে পারে। তবে জাতির অস্তিত্বের প্রশ্নে ঐক্যবদ্ধ হওয়া ছাড়া কোনো বিকল্প নেই।”
জাসদের সাধারণ সম্পাদক শরীফ নুরুল আম্বিয়ার সভাপতিত্বে বৈঠকে অন্যদের মধ্যে জাসদ নেত্রী শিরীন আক্তার ও ওয়ার্কার্স পার্টির আনিসুর রহমান মল্লিক উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার