‘এটা পদত্যাগপত্রই নয়, আনুষ্ঠানিকতা মাত্র’

shofiq
সমাজের কথা ডেস্ক॥ প্রধানমন্ত্রীর হাতে মন্ত্রীদের পদত্যাগপত্র দেয়া নিয়ে বিভিন্ন মহল থেকে ‘সাংবিধানিক’ প্রশ্ন ওঠার পর আইনমন্ত্রী শফিক আহমেদ বলেছেন, সেগুলো আদতে পদত্যাগপত্রই নয়, কেননা তা রাষ্ট্রপতির বরাবরে দেয়া হয়নি।
মঙ্গলবার সচিবালয়ে মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, রাষ্ট্রপতির কাছে পেশ করার জন্য মন্ত্রীরা কেউ পদত্যাগপত্র দেননি। তারা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর কাছে।
কেবল রাষ্ট্রপতির কাছে পেশ করার জন্য পদত্যাগপত্র দিলেই তা কার্যকর হয়, এক্ষেত্রে তা হয়নি।”
আইনমন্ত্রীর ভাষায়, “রাস্ট্রপতিকে উদ্দেশ্য করে কোনো পদত্যাগপত্র দেয়া হয়নি, এটি পদত্যাগপত্রই না, এটি একটি আনুষ্ঠানিকতা মাত্র।”
নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে বিরোধী দলের আন্দোলনের মধ্যেই সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর হাতে ‘তারিখবিহীন’ পদত্যাগপত্র জমা দেন মন্ত্রিসভার সদস্যরা, যার মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাব অনুযায়ী নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়।
মঙ্গলবার সাংবাদিকদের কাছে এ বিষয়ে সরকারের অবস্থান তুলে ধরেন আইনমন্ত্রী।
তিনি বলেন, “পত্র দিলেই তা পদত্যাগ হবে না, একটি নির্দিষ্ট উদ্দেশ্য থাকতে হবে যে এটি রাষ্ট্রপতির নিকট পেশ করার জন্য দেয়া হয়েছে।”
শফিক আহমেদের যুক্তি, মন্ত্রীরা কেউ পদত্যাগ করেননি, তারা অভিপ্রায় ব্যক্ত করেছেন মাত্র। যে পদত্যাগপত্র দেয়া হয়েছে, তা সংবিধান অনুযায়ীও হয়নি। সংবিধানের বিধান অনুযায়ী রাস্ট্রপতির কাছে পেশ করার আগ পযন্ত কোনো পদত্যাগপত্রই কার্যকর হয় না।
“কাজেই মন্ত্রিপরিষদে যারা আছেন তারা মন্ত্রী হিসেবেই আছেন। তাদের পদ শূন্য হয়নি, মন্ত্রীর সুযোগ সুবিধা নেয়া এবং দায়িত্ব পালনেও কোনো বাধা নেই।”

শেয়ার