আগামীকাল নাম ফলক উন্মোচন করবেন শেখ হাসিনা ॥ সাড়ে ৫শ’ কোটি টাকা ব্যয়ে মংলায় নির্মিত হচ্ছে দক্ষিণ বঙ্গের সর্ব বৃহত্তম খাদ্য গুদাম

লোকমান হোসেন (মংলা) প্রতিনিধি ॥ দেশের খাদ্য সংকট মোকাবেলায় মংলায় নির্মিত হচ্ছে দণি বঙ্গের সর্ববৃহত্তম খাদ্য গুদাম। ৫৩৭কোটি টাকা ব্যয়ে এ খাদ্য গুদামটির নির্মাণকাজ সম্পন্ন হলে একদিকে বাড়বে মংলা বন্দরের কর্মচাঞ্চল্যতা অপর দিকে দেশের খাদ্য সংকটের বিরাজমান অবস্থায় গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করবে। আগামীকাল ১৩ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মংলা ও রামপাল সফরকালে সুন্দরবন সংলগ্ন জয়মনির গোল এলাকায় তিনি নির্মাণাধিন এ খাদ্য গুদামের নামফলক উম্মোচন করবেন। মংলা বন্দর ব্যবহার করে বিদেশ থেকে আমদানি করা খাদ্য-শস্য সংরণ এবং পরবর্তীতে তা সরকারের চাহিদামত দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহের জন্য মংলার পশুর নদীর তীরে জয়মনিতে ৫৩৭কোটি টাকা ব্যয়ে ৫০হাজার মেঃ টন ধারনমতার সাইলোটি নির্মাণ হচ্ছে। ২০১১ সালের ২৩নভেম্বর খাদ্য মন্ত্রনালয়ের অধিনে অত্যাধুনিক এ সাইলোর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ১৩টি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সীমানা প্রাচীর, অফিস ভবনসহ অন্যান্য সকল কাজ সম্পন্ন করেছে। মুল সাইলো ও জেটি নির্মাণ কাজ বাংলাদেশ ও জাপানের জয়েন্ট ভেন্সার প্রতিষ্ঠান তমা কনাশট্রাকশন শুরু করেছে। আগামী ২০১৪ সালের জুন মাস নাগাদ সাইলোর নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।
উপ-প্রকল্প পরিচালক সাইলো ইঞ্জিনিয়ার বিমল ভুঁইয়া জানান, আগামী কাল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্মাণাধিন সাইলো প্রকল্পের নামফলক উম্মেচন করবেন। তার আগমন উপল্েয সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে
স্থানীয় সাংসদ হাবিবুন নাহার জানান, প্রধানমন্ত্রী বুধবার সকালে মংলার জয়মনিতে সুধি সমাবেশ এবং রামপালে দলীয় এক জনসভায় বক্তৃতা করবেন এবং একই সঙ্গে নির্মাণাধিন ও গৃহীত বিভিন্ন প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন। এতে করে জনগনের কাছে দেওয়া নির্বাচনী প্রতিশ্রতি বাস্তবায়ন হয়েছে তাদের।
এদিকে, প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলে ইতিমধ্যে সাইলো নির্মাণ কাজ পরিদর্শনে এসে খাদ্যমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক জানান, প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্র“তি অনুযায়ী দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লে মংলায় এ খাদ্য গুদাম নির্মাণ করা হচ্ছে। ফলে দেশের দাণি-পশ্চিম ও উত্তর পশ্চিমাঞ্চলে খাদ্য শষ্য দ্রত সরবরাহ করা সম্ভব হবে। দেশের উন্নয়নে নতুন মাত্রা যোগ হবে।
বাগেরহাট পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান জানান, প্রধানমন্ত্রীর আগম উপলে মংলায় আইনশৃঙ্খলা রার দায়িত্বে নিয়োজিত বিভিন্ন বাহিনীর সমন্বয়ে নিরবিছিন্ন নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে। এ সাইলোর নির্মান কাজ শেষ হলে মংলা বন্দরের কর্মচঞ্চল্যতা বৃদ্ধিসহ ব্যাপক কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃস্টির আশা এ অঞ্চলের মানুষের।

শেয়ার