যশোরে আন্ত:জেলা ডাকাত দলের তিন সদস্য আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোরে আন্ত:জেলা ডাকাত দলের তিন সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার রাতে কোতয়ালি থানার এসআই জামাল উদ্দিন শহরতলীর চাঁচড়া এলাকা থেকে আটক করেন। আটককৃতরা হলো, শহরের ঘোপ জেল রোডের সিরাজুল ইসলামের বাড়ির ভাড়াটিয়া দুলাল পাটোয়ারীর ছেলে হাসান পাটোয়ারী, বারান্দী মাঠপাড়ার সিরাজুর রহমানের ছেলে আরিফুর রহমান জনি ও বারান্দীপাড়া বৌ বাজার এলাকার হানিফ মিয়ার ছেলে সজিব হোসেন।
৫ অক্টোবর ভোর রাতে শহরতলীর রাজারহাট প্রাইম ফিলিং স্টেশনে দুর্ধর্ষ ডাকাতি সংঘটিত হয়। একটি প্রাইভেটকারে ৫/৬ জনের একদল দুর্বৃত্ত ওই ফিলিং স্টেশনে এসে নৈশ প্রহরী মজনুকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ভিতরে প্রবেশ করে। এর পর ম্যানেজার আমিনুল ইসলামের মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে ক্যাশে থাকা নগদ দুই লাখ টাকা নিয়ে চলে যায়। এ ঘটনায় ম্যানেজার আমিনুল ইসলাম কোতয়ালি থানায় অজ্ঞাতনামা আসামি দিয়ে মামলা করেন। কিন্তু ডাকাতি করা টাকা ভাগাভাগি নিয়ে তাদের মধ্যে মতবিরোধ দেখা দেয়। এক পর্যায়ে সজিবকে অপর দু’আসামি হাসান ও আরিফুর রহমান জনি অপহরন করে। অপহরনের ঘটনাটি জানতে পেরে পুলিশ মোবাইল ফোনের কললিস্টের মাধ্যমে চাঁচড়া এলাকা থেকে আরিফুর রহমান জনিকে পুলিশ আটক করে। তার স্বীকারোক্তিতে অপর দু’জনকে আটক করা হয়। আটক তিনজনই প্রাইম ফিলিং স্টেশনে ডাকাতি করার কথা প্রাথমিকভাবে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে। এ ছাড়াও তাদের সহযোগী হিসেবে শহরের সাদেক দারোগার মোড় এলাকার রানা, জুয়েল ও সুমনের নাম স্বীকার করেছে।
পুলিশ জানিয়েছে, মাস তিনেক আগে শহরের এইচএমএম রোডের আপন ফেব্রিক্স নামে একটি দোকানের ৭ লাখ ৬৩ হাজার টাকার কাপড় সাতক্ষীরা জেলার পাটকেলঘাটা থেকে যশোরের উদ্দেশ্যে আসছিল। যশোর শহরতলীর রাজারহাট রেল ক্রসিংয়ের কাছে ওই কাপড়ের পিকআপ গাড়িটি পৌছালে আটক এ তিন ডাকাত এবং আরো কয়েকজনে ওই কাপড় ডাকাতি করে। কিন্তু তারা আন্ত:জেলা ডাকাত দলের সদস্য হওয়ায় আপন ফেব্রিক্সের সত্বাধিকারি তাজুল করিম সাজু কোন আইনি ব্যবস্থা নিতে সাহস পাননি বলে জানাগেছে।
আটক তিনজনকে সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে পুলিশ আদালতে প্রেরণ করেছে। আদালত শুনানীর দিন ধার্য করে তাদেরকে জেলে পাঠিয়ে দিয়েছেন।

শেয়ার