হাইয়ান : ফিলিপাইনে ১০ হাজার মানুষের প্রাণহানি

philipine
বাংলানিউজ ॥
প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দেশ ফিলিপাইনে গত শুক্রবার ভোরে আঘাত হানা শক্তিশালী টাইফুন হাইয়ানের আঘাতে ১০ হাজার মানুষের প্রাণহানির আশঙ্কা করছে কর্তৃপক্ষ।
রোববার সকালে তাকলোবান শহরের এক পুলিশ কর্মকর্তার বরাত দিয়ে সংবাদ মাধ্যম জানান, আমরা প্রদেশটির গর্ভনরের সঙ্গে গত রাতে ঝড় পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠক করেছি। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ঝড়ে ১০ হাজার মানুষের প্রাণহানি হয়েছে।
টাইফুন হাইয়ানের আঘাতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে লিতি প্রদেশের তাকলোবান শহর।
এর আগে হাইয়ানের আঘাতে প্রায় ১২শ’ মানুষ মারা গেছে বলে জানিয়েছিল দেশটির রেডক্রস।
তবে, পাঁচ নম্বর ক্যাটাগরির টাইফুনটি স্থানীয় সময় শুক্রবার ভোর ৫টায় (গ্রিনিচমান সময় বৃহস্পতিবার ২১টায়) ২৭৫ কিলোমিটার বেগে আঘাত হানার পর শনিবার সকালে দেশটির সংবাদ মাধ্যমগুলো জানিয়েছিল, টাইফুনের তা-বে প্রায় ১২০ জন নিহত হয়েছে।
তবে, স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় ফিলিপাইনে কর্মরত রেডক্রসের কর্মকর্তারা এক সংবাদ সম্মেলন করে জানান, টাইফুনের আঘাতে ১২শ’ মানুষ নিহত হয়েছে বলে অনুমান করা হচ্ছে। তবে এ সংখ্যা আরও কয়েকদিন পর সঠিকভাবে নির্ণয় করা যাবে বলে জানান তারা।
দেশটিতে নিযুক্ত রেডক্রসের সেক্রেটারি জেনারেল গুবেনডলিন প্যাং বলেন, আমরা অনুমান করছি টাইফুনের আঘাতে ট্যাকলোব্যান প্রদেশে ১০০০ ও সামার প্রদেশে অন্তত ২০০ লোক মারা গেছে।
দেশটির সংবাদ মাধ্যমগুলো জানায়, স্থানীয় সময় ভোরে টাইফুন হাইয়ান সর্বপ্রথম আঘাত হানে দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় দ্বীপ সামারে।
টাইফুনের আঘাতে তাকলোবান শহরের রাস্তায় মৃতদেহ পড়ে থাকার কথা জানিয়েছেন দেশটির বেসামরিক বিমান পরিচালনা কর্তৃপক্ষের সহকারি পরিচালক ক্যাপ্টেন জন অ্যান্ড্রুস।
প্রচন্ড বেগে আঘাত হানা টাইফুনটি বহু ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত করেছে, ঘটেছে ভূমিধস। বিদ্যুত ও যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।
যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ওয়েদার আন্ডারগ্রাউন্ডের পরিচালক ও হারিকেন বিশেষজ্ঞ জেফ মাস্টার্স বলেছেন, সম্ভবত ঘণ্টায় ১৯৫ মাইল বেগে সুপার টাইফুন আঘাত হেনেছে। আঘাত হানা শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় হিসেবে রেকর্ড করেছে এটি।
যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনীর যৌথ টাইফুন সতর্কতা কেন্দ্র হাইয়ান আঘাত হানার কিছুক্ষণ আগে জানিয়েছিল, ঘণ্টায় ৩১৪ কিলোমিটার গতিতে ঝড়ো যাওয়া বয়ে যাওয়ার সঙ্গে ৩৭৯ কিলোমিটার বেগে আঘাত হানতে পারে।

শেয়ার